কুমিল্লার লাকসাম পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের উত্তকুল ও উত্তরদা ইউনিয়নের পোলইয়া গ্রামে একরাতে দুই বাড়িতে ডাকাতি সংঘটিত হয়েছে। ডাকাতরা ওই দুই বাড়ি থেকে নগদ টাকা, স্বর্ণালঙ্কার ও মোবাইল ফোন লুটে নেন। শনিবার (৬ফেব্রুয়ারী) ভোররাতে পৌর শহরের উত্তরকুল গ্রামের বিল্লাল হোসেন ও উত্তরদা ইউনিয়নের পোলইয়া গ্রামের ছাফায়েত উল্লাহর বাড়িতে এ ডাকাতির ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় একাধিক সূত্র ও ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার জানায়, রবিবার গভীর রাতে লাকসাম পৌরশহরের ৯নং ওয়ার্ড উত্তরকুল গ্রামে গরু ব্যবসায়ী বিল্লাল হোসেনের বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটে। বাড়ির লোকজন ঘুমন্ত থাকাকালে ১২/১৫ জনের ডাকাতদল ওই ভবনের কলাপসিবল গেইটের তালা ভেঙ্গে প্রথমে নীচ তলায় থাকা ওই বাড়ির মালিক বিল্লাল হোসেনের রুমের দরজা ভেঙ্গে বিল্লালের হাত-পা বেঁধে বেদম মারধরসহ বাড়িতে ঢুকে ভাংচুর করে নগদ ৫ লাখ টাকা, প্রায় ৮ ভরি স্বর্ন, ৪টি মোবাইল সেট, একটি জেনারেটর ও ১টি লাগেজসহ প্রায় ১০/১২ লাখ টাকার মালামাল নিয়ে যায়। ডাকাতদল পিস্তল, চাপাতি, চোরা ও জয়েন্ট পাইপসহ বিভিন্ন ধরনের অস্ত্র দেখিয়ে তাদের ভয়ভীতি প্রদর্শন করে। ওই বাড়ির লোকজনের আত্মচিৎকারে আশে পাশের লোকজন এগিয়ে আসতে শুরু করলে তারা পালিয়ে যায়। এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে।
এ ব্যাপারে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর গোলাম রাব্বানী জানায়, ডাকাতির ঘটনার খবর পেয়ে তাৎক্ষনিক থানা পুলিশকে ফোন করি এবং তাদের বাড়িতে গিয়ে বিস্তারিত জানি।

অপরদিকে একই রাতেই লাকসাম উপজেলার উত্তরদা ইউপির ৩নং ওয়ার্ড পোলইয়া গ্রামের আওয়ামীলীগ নেতা মৃত. ছাফায়েত উল্লাহ মজুমদারের বাড়িতে ওই ডাকাত দল একই ধরনের ঘটনা ঘটিয়েছে। বাড়ির মালিক অনিক, আমান ও লোকমান হোসেনসহ ৩টি ঘরে একযোগে হামলা, ভাংচুর চালিয়ে নগদ টাকা, মোবাইল সেট, স্বর্নসহ প্রায় ৩ লাখ টাকার মালামাল লুটে নিয়ে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে দুটো বাড়িতেই লাকসাম থানা পুলিশ পরিধর্শন করেন।

এ ব্যাপারে লাকসাম ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ নিজাম উদ্দিন জানায়, অভিযোগ প্রাপ্তির পর তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: