ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লা জেলা তৎকালীন বুড়িচং বর্তমানে ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা সাহেবাবাদ ইউনিয়নের কৃতিসন্তান আমাদের গর্ব।

স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধে গৌরবোজ্জ্বল ও কৃতিত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে স্বাধীনতা পদকে ভূষিত হলেন বাংলাদেশের প্রথম আইজিপি ও প্রথম স্বরাষ্ট্র সচিব মরহুম আবদুল খালেক।

আবদুল খালেক ১৯২৭ সালের ১ মার্চ কুমিল্লা জেলার ব্রাহ্মনপাড়া থানাধীন জিরুইন গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি দেবিদ্বার গঙ্গামন্ডল রাজ ইনস্টিটিউটে ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতি শাস্ত্রে সম্মান সহ ১৯৫০ সালে এম এ পাশ করেন। কিছুদিন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতাও করেন। ১৯৫১ সালে তিনি তৎকালীন সিভিল সার্ভিস অফ পাকিস্তান (সি এস পি) পরিক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে পুলিশ ক্যাডারে যোগ দেন।

তিনি তৎকালীন গোপালগঞ্জ ও নারায়ণগঞ্জ মহকুমায় এসডিপিও এবং বরিশাল, পাবনা, রাজশাহী, চট্টগ্রাম ও ময়মনসিংহ জেলায় পুলিশ সুপার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তিনি পুলিশ একাডেমী সারদায় প্রিন্সিপাল হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি মুজিবনগর সরকারের সময় থেকে স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম আইজিপি হিসেবে ২৩ এপ্রিল, ১৯৭৩ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়া তিনি ১৯৭১ সালের ৪ সেপ্টেম্বর থেকে ১৯৭৩ সালের ২৬ জানুয়ারি পর্যন্ত বাংলাদেশের প্রথম স্বরাষ্ট্র সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

>>আরো পড়ুনঃ  সাতক্ষীরার পুলিশ সুপার হলেন কুমিল্লার কৃতি সন্তান মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান

তিনি পুলিশ সদর দপ্তর গঠন, পাসপোর্ট ব্যবস্থার প্রবর্তন, কার্যকরী পুলিশ কাঠামো স্থাপন, পুলিশ কর্মকর্তা নিয়োগ এবং ১৬ ডিসেম্বর পরবর্তী শক্রমুক্ত বাংলাদেশের সমস্ত পুলিশ রেঞ্জ ও পুলিশ সুপার নিযুক্তি সম্পন্ন করেন। এছাড়া তিনি ত্রাণ ও পুনর্বাসন মন্ত্রণালয় এবং মৎস্য ও পশু সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ পুলিশ একাডেমী সারদায় কর্মরত থাকাকালে পাক বাহিনীর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলেন আবদুল খালেক। পাকবাহিনীর আক্রমণের কারণে সারদা প্রত্যাবর্তনে ব্যর্থ হয়ে তিনি পরিবারসহ ভারতে চলে যান। তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানে কর্মরত সব পুলিশ সদস্যকে মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয় অংশগ্রহণের আহবান জানিয়ে তিনি চিঠি লেখেন।

২০১৩ সালের ১০ই জুন বার্ধক্যের কারণে ইউনাইটেড হাসপাতালে মারা যান। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮৬ বছর।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ