ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লায় গোমতী চরের মাটি খেকো সিন্ডিকেটের দৌরাত্মে দিশেহারা হয়ে পরেছেন চরের সবজি চাষি ও কৃষিকরা। দীর্ঘদিন ধরেই চলছিলো ফসলী জমির উর্বর পলি মাটি কাটার মহোৎসব। বিভিন্ন দৈনিকে ও অনলাইনে সংবাদ প্রকাশের পর বিষয়টি আমলে নিয়ে মাটিকাটা রোধে সাড়াশি অভিযানে নামে কুমিল্লা জেলা প্রশাসন।

রোববার দুপুরে কুমিল্লার গোমতী চরের আবাদী ও উর্বর ফসিল জমির মাটি খেকোদের বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট এ কে এম ফয়সাল (এসিল্যান্ড সদর উপজেলা) এর নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালিত হয়।

এসময় আদর্শ সদর উপজেলার আলেখারচর ও আমতলী এলাকার গোমতী চর থেকে মাটি বোঝাই ৭টি ড্রামট্রাক সহ ৩চালককে আটক করা হয়। বাকি ৪ট্রাকের চালক প্রশাসনের উপস্থিতি টের পেয়ে ট্রাক ফেলে পালিয়ে যায় বলে জানা গেছে। আটককৃত ট্রাক চালকগন হলো আদর্শ সদর উপজেলার আমড়াতলী ইউপি এলাকার সীমপুর গ্রামের নুরুল ইসলাম এর ছেলে আব্দুস সালাম (৫০), কালির বাজার দৈয়ারা গ্রামের তোতা মিয়ার ছেলে সুমন (৩৫) ও বরুড়া উপজেলার দীঘলগাঁও গ্রামের ইউনুস এর ইলিয়াস (৪৮)।

এসময় অবৈধভাবে চরের উর্বর ফসলী জমির মাটি কাটা, পরিবেশ, নদী ও বাঁধের ক্ষয়ক্ষতি সহ বিভিন্ন অপরাধে মাটিবাহী ড্রাম ট্রাকের মালিক সদর দক্ষিণ উপজেলার কচুয়া এলাকার মৃত কোরবান এর ছেলে আবুল হোসেন কে ৩লক্ষ টাকা জরিমানা করা হয়। জরিমানা অনাদায়ে ট্রাক জব্দ করা সহ চালকদের প্রত্যেককে ৬মাস করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়। অপর ৪ ট্রাকের মালিক ও চালক কাউকে না পাওয়ায় ট্রাকগুলো জব্দ করে ট্রেজারীতে জমা করা হয় ।

রায় প্রদান করেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট এ কে এম ফয়সাল। তিনি বলেন, কৃষক ও ফসলের ক্ষতিসাধন সহ নদী, বাধঁ, সড়ক ও পরিবেশ বিনষ্টকারীদের বিরুদ্ধে এমন অভিযান অব্যাহত থাকবে । এসময় কোতয়ালী থানা পুলিশের একটি টিম অভিযানে সার্বিকভাবে সহায়তা প্রদান করেন।