কুমিল্লার নাঙ্গলকোটের ছুপুয়া বাজার সংলগ্ন মদিনা ইটভাটার পানি সেচের মেশিনের পাখায় বোরকা পেঁচিয়ে ফারিয়া আক্তার (১৭) নামে এক কলেজ ছাত্রীর ঘটনাস্থলে মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার বিকেল সোয়া ৩টায় রায়কোট উত্তর ইউনিয়নের ছুপুয়া মালিপাড়া সড়কের মধ্যবর্তী স্থানে। ওই কলেজ ছাত্রী উপজেলার মালিপাড়া গ্রামের বাহরাইন প্রবাসী মোশারফ হোসেনের মেয়ে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ছুপুয়া গ্রামের মৃত ইউনুস মাস্টারের মেয়ে সেলিমা বেগমের বিয়ে হয় পাশ্বর্বতী মালিপাড়া গ্রামের সিরাজ সওদাগরের ছেলে মোশারফ হোসেনের সাথে। বিয়ের ২ বছর পর তাদের বিচ্ছেদ ঘটে। ওই দম্পতির ফারিয়া নামে একটি কন্যা সন্তান ছিল।

মেয়ের ভবিষতের কথা চিন্তা করে আর বিয়ে করেনি ফারিয়ার মা সেলিমা বেগম। মেয়েটি চলতি বছর এসএসসি পাশ করে সুহৃদ একে সাইন্স এন্ড টেকনোলজি ইনিস্টিটিউটে এইচ এসসিতে ভর্তি হন। কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাস সোমবার মেয়েটি নানার বাড়ী থেকে পাশ্ববর্তী মালিপাড়া বাবার বাড়ীতে যাওয়ার পথে ছুপুয়া মালিপাড়া কাঁচা সড়কে মদিনা ইটভাটার পানি নিষ্কাশনের জন্য বসানো ২০ ঘোড়া ডিজেল চালিত মেশিনের পাখায় বোরকা পেঁচিয়ে ঘাড় ভেঙ্গে ঘটনাস্থলে তার মৃত্যু হয়। মদিনা ইটভাটার ওই মেশিনটি দীর্ঘদিন যাবৎ চলার কারনে সড়কে গভীর গর্ত তৈরি হয়। যার ফলে ফারিয়া পার হওয়ার জন্য আর কোন উপায় না দেখে মেশিনের পাইপ টপকে পার হওয়ার সময় এ দুর্ঘটনায় পতিত হয়।

নাঙ্গালকোট থানা পুলিশের উপ পরিদর্শক (এসআই) সোহেল মিয়া জানান, ঘটনাস্থল থেকে ওই তরুণীর লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য তার লাশ কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: