কুমিল্লা সদর উপজেলার জগন্নাথপুর ইউনিয়নের ঘিলাতলীতে চৌধুরী ডেইরি ফার্ম হতে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে ২০ লক্ষ টাকা মূল্যের ৪টি বাচুরসহ ১২ টি দুগ্ধজাত গাভী ডাকাতির ঘটনায় মুল হোতা মোহাম্মদ আলীসহ তিন জনকে আটক করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার সকালে কুমিল্লা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ সকল বিষয় তুলে ধরেন পুলিশ সুপার মোঃ সৈয়দ নূরুল ইসলাম।

জানা যায়, গত ২২ অক্টোবর মধ্য রাতে বিজিবির পরিচয়ে ৫/৬ জনের একটি দল ওই ফার্মে প্রবেশ করে। তাদের মধ্যে ৪ জনের পরনে বিজিবির পোশাক ছিলো। তাদের একজনের হতে আগ্নেয়াস্ত্র ও বাকীদের হাতে দেশীয় অস্ত্র ছিল। ডাকাত দল অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে নৈশপ্রহরী মহব্বত ও তার স্ত্রী পুত্র-কন্যাদের হাত-পা বেঁধে জিম্মি করে খামার থেকে ১২টি দেশি-বিদেশি দুগ্ধজাত গাভী ও ৪টি বছুর ডাকাতি করে নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে চৌধুরীর ফার্মের মালিক মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম চৌধুরী বাদী হয়ে এ ঘটনায় কোতোয়ালি মডেল থানায় একটি ডাকাতি মামলা দায়ের করেন।

মামলার পর থেকে কোতয়ালী থানা ও ডিবি পুলিশের সমন্বয়ে দুটি দল নিরবিচ্ছিন্ন অভিযান পরিচালনা করে বুধবার মুল হোতা দেবিদ্বার উপজেলার চুলাশ গ্রামের হানিফ মিয়ার ছেলে মোহাম্মদ আলী (৪০)’কে আটক করে। পরে এই চক্রের আরো দুই সদস্য কুমিল্লা নগরীর দক্ষিন চর্থা এলাকার রুপা মিয়ার ছেলে মোঃ সহিদ মিয়া (৩৫) ও তাঁর ভাই মানুম মিয়া (৩৮)’কে আটক করে। এসময় তাঁদের কাছ থেকে গরু বিক্রির ২ লাখ ৯৬ হাজার টাকা উদ্ধার করে।

পুলিশ সুপার আরো জানান, আটককৃতরা কুমিল্লাসহ আশপাশের জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে চুরি/ডাকাতি করে নিয়া আস গরুগুলো সহিদ ও মাসুম মিয়ার কাছে দিলে তারা জবাই করে মাংস হিসেবে বিক্রি করা ছাড়াও ক্ষেত্রবিশেষে অন্যত্রও বিক্রি করে দিতো। এই পুরো সিন্ডিকেটের সাথে ৪০/৪৫ জন জড়িত রয়েছে। পুরো চক্রটি আটকের জন্য কুমিল্লা জেলা পুলিশ অভিযান অব্যহত রেখেছে।

এসময় জেলা পুলিশের উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: