ফাইল ফটো

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার শ্রীকাইল গ্যাস ক্ষেত্রে নতুন স্তরের সন্ধান পাওয়া গেছে।

নতুন স্তরের গ্যাস দেশীয় প্রযুক্তিতে উত্তোলন করে তিন-চারদিনের মধ্যে জাতীয় গ্রিডে যুক্ত করা হবে বলে শুক্রবার রাতে জানিয়েছেন গ্যাস ক্ষেত্রটির ইনচার্জ প্রকৌশলী মো. শাহজাহান।

তিনি আরও জানান, সেখানে গ্যাস আছে কিনা এবং থাকলে কী পরিমাণ থাকতে পারে- তা নিশ্চিত হতে ৫৫ দিন আগে কাজ শুরু হয়। শুক্রবার সন্ধ্যায়ই নতুন গ্যাস স্তর থাকার বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

প্রকৌশলী মো. শাহজাহান জানান, গ্যাস ক্ষেত্রের ৪ নম্বর কূপের এই নতুন স্তর থেকে প্রতিদিন প্রায় ২০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস উত্তোলন করা সম্ভব হবে।

তিনি বলেন, ‘শ্রীকাইল গ্যাস ক্ষেত্রের ৪ নম্বর কূপটির উপরের স্তর থেকে আগেই ৬-৭ মিলিয়ন ঘনফুট করে গ্যাস উত্তোলন করা হচ্ছিল। নতুন স্তরে ৩০-৪০ বিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস থাকতে পারে।’

গ্যাস ক্ষেত্রটির ইনচার্জ বলেন, ‘নতুন করে আরও গভীরে খননের মাধ্যমে নতুন স্তর পাওয়া গেছে। সেই স্তর থেকে প্রতিদিন ২০ মিলিয়ন ঘটফুট গ্যাস উত্তোলন করা যাবে।’

শ্রীকাইলের কূপ থেকে ২০১৩ সালের জুন মাসে গ্যাস উত্তোলন শুরু হয়। সেই স্তরটি বন্ধ করে নতুন স্তর থেকে গ্যাস উত্তোলন করা হবে।

প্রকৌশলী শাহজাহান জানান, বাংলাদেশ এখনও বিদেশ থেকে বিপুল পরিমাণ এলএনজি আমদানি করে। নতুন কূপের গ্যাস এলএনজি খাতে ব্যবহার করা গেলে বিপুল রাজস্ব আয় হবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: