ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লায় প্রেম সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে সহকর্মীদের হাতে খুন হয় শ্রমিক রাশেদ হোসেন(১৬)। রাশেদ জেলার সদর উপজেলা গোবিন্দপুর এলাকার মৃত আবদুর রশিদের ছেলে। মঙ্গলবার পুলিশ সুপার কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে জেলা পুলিশ সুপার সৈয়দ নরুল ইসলাম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

সাংবাদিক সম্মেলনে জানানো হয়, গত ২৮ এপ্রিল ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার কমলপুর এলাকায় ফরিদ গ্রুপের ফরিদ নেটস নামীয় ফ্যাক্টরির কর্মস্থলের উদ্দেশ্যে ঘর থেকে বের হয় রাশেদ। পরে রাত ১০ টায় ডিউটি শেষ হলেও রাশেদ ঘরে ফিরে না আসায় তার মোবাইল ফোনে কল করে স্বজনরা। এ সময় রাশেদের ব্যবহৃত ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

পরের দিন ২৯ এপ্রিল সকাল ১০ টায় সদর দক্ষিণ থানার গলিয়ারা ইউনিয়নের ফুলতলী মধ্যমপাড়া এলাকার ফজলুল হকের মাছ চাষের ঘেরে এক যুবকের গলাকাটা লাশ দেখে পুলিশকে খবর দেয় স্থানীয়রা। পরে লাশটি রাশেদের বলে চিহ্নিত করে তার বোন নিপা আক্তার।

সদর দক্ষিণ থানার ওসি কর্মকর্তা মামুনুর রশীদ জানান, প্রেম সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে একই ফ্যাক্টরির কর্মরত রাশেদের সহকর্মী চৌদ্দগ্রাম উপজেলার মানিকপুর এলাকার আবদুর রাজ্জাকের ছেলে মোঃ রাসেল (১৮) ও তার সহযোগী সদর দক্ষিণ থানার বানীপুর গ্রামের মোঃ খলিলুর রহমানের ছেলে মোঃ আরিফ রাশেদকে হত্যা করে। ১৬৪ ধারায় খুনের বিষয়টি স্বীকার করে অভিযুক্ত মোঃ রাসেল ও মোঃ আরিফ। তারা রাশেদকে ফ্যাক্টরি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। পরে পাশের ফুলতলী এলাকায় নিয়ে ধারালো ছুরি ও ব্লেড দিয়ে গলা কেটে হত্যা করে। লাশ গুম করার জন্য পুকুরে নিক্ষেপ করে।