কুমিল্লায় ভুল চিকিৎসায় শিশুমৃত্যুর অভিযোগ

ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লার মনোহরগঞ্জে ভুল চিকিৎসায় সাত মাসের এক শিশুর মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার (৯ মার্চ) রাতে শিশুটির মৃত্যু হয়। নিহত শিশু ফাইজা আক্তার তাবাস্সুম মড়হ ভাটকোর গ্রামের ফারুকের মেয়ে।

তাবাস্সুমের স্বজনরা জানান, ঠান্ডা লাগায় তাবাস্সুমকে বৃহস্পতিবার উপজেলার লক্ষণপুর বাজারে মনোরমা ফার্মেসিতে আনা হয়।পল্লী চিকিৎসক সন্তোষ চন্দ্র শীলের ছেলে সঞ্জয় কুমার শীল তাবাস্সুমকে একটি ইনজেকশন দেন এবং আরও ৪টি দেওয়ার পরামর্শ দেন। শুক্রবার সকালে আরেকটি ইনজেকশন দেওয়ার পর তাবাস্সুম আরও বেশি অসুস্থ হয়ে পড়ে। এ অবস্থায় ওই চিকিৎসকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে বাকি তিনটি ইনজেকশন না দিয়ে পুনরায় তাবাস্সুমকে ফার্মেসিতে নিয়ে আসতে বলেন। সন্ধ্যায় স্বজনরা আবারও শিশুটিকে নিয়ে আসেন ফার্মেসিতে। এ সময় দুই পক্ষের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে ‘ক্ষতিকর’ ইনজেকশনগুলো সরিয়ে ফেলেন সঞ্জয় কুমার শীল। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য লাকসাম নিয়ে যাওয়ার সময় পথে মারা যায় তাবাস্সুম।

তাবাস্সুমের মা-বাবার দাবি, ভুল চিকিৎসায় তাদের মেয়ের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় শনিবার (১০ মার্চ) সকালে মনোরমা ফার্মেসিতে তালা লাগিয়ে দেয় ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী। তারা জানায়, এর আগে ওই চিকিৎসকের ভুল চিকিৎসায় কমল নামে এক ব্যক্তি মারা যান। তবে অভিযুক্ত চিকিৎসক সঞ্জয় কুমার শীল ভুল চিকিৎসায় শিশুর মৃত্যুর অভিযোগ মিথ্যা বলছেন।

মনোহরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. শাহজাহান সরকার বলেন, ‘ভুল চিকিৎসায় সাত মাসের শিশুর মৃত্যুর বিষয়টি আমি শুনেছি। তবে এ ব্যাপারে কোনও লিখিত অভিযোগ পাওয়া যায়নি। পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ