ডেস্ক রিপোর্টঃ আগামী ৯ ডিসেম্বর কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণ করা হলেও নিজেকে সাধারণ সম্পাদক দাবি করে বিতর্কে জড়িয়েছেন হুমায়ুন মাহমুদ নামে এক প্রার্থী। শুধু দাবি করেই ক্ষান্ত হননি, রীতিমতো হয়রানিও করে চলেছেন এই আওয়ামী লীগ নেতা। নতুন কমিটি ঘোষণার আগে এমন দাবিতে বিব্রত স্থানীয় আওয়ামী লীগ। সম্প্রতি তার একটি ভিডিও সোশ্যালে ভাইরাল হলে বেশ বেকায়দায় পড়েন স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।

জানা যায়, কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হুমায়ুন মাহমুদ। কিন্তু বেশ কয়েকদিন ধরেই নিজেকে কুমিল্লা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দাবি করে আসছেন। সঙ্গে থাকছে চোখ রাঙানি।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান কমিটির সহ-সভাপতি হুমায়ুন মাহমুদ। কমিটির সভাপতি আব্দুল আউয়াল সরকার এবং সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম সরকার। নতুন কাউন্সিলকে ঘিরে মাঠে তৎপর বেশ কয়েকজন প্রার্থী। সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হিসেবে শোনা যাচ্ছে বেশ কয়েকজনের নাম। হুমায়ুন মাহমুদ তাদের একজন।

কুমিল্লা উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি জানিয়েছেন, ‘আগামী ৯ ডিসেম্বর চা‌ন্দিনা মহিলা বিশ্ববিদ্যালয় ক‌লেজ মাঠে ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে কাউন্সিলরদের ভোটে নতুন নেতৃত্ব নির্বাচিত হবে। সম্মেলনের দিন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকে নির্বাচিত হবে। পর্যায়ক্রমে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হবে।’

সম্মেলনের আগেই হুমায়ুন মাহমুদ নিজেকে সাধারণ সম্পাদক দাবি করছে- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এমন কর্মকাণ্ড কাণ্ডজ্ঞানহীন ব্যক্তিরাই কর‌তে পা‌রে, এটা সম্পূর্ণ তার ব্য‌ক্তিগত, এমন বক্তব্যের সঙ্গে কু‌মিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ জ‌ড়িত নয়’।

এদিকে কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ ও তৃণমূল নেতাকর্মীদের দাবি, হুমায়ুনের কারণে দলের ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে। জেলার নেতাদের অস্বস্তিকর পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হচ্ছে। এছাড়া, সাধারণ সম্পাদক পরিচয় দেওয়ার কারণে বিব্রতকর অবস্থায় পড়তে হচ্ছে বর্তমান সাধারণ সম্পাদক‌কে। তার বিরুদ্ধে দলীয় ব্যবস্থা নেওয়া হোক।

এদিকে অভিযোগের বিষয়ে সাধারণ সম্পাদক পরিচয় দেওয়া হুমায়ুন মাহমুদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে মুঠোফোনে চেষ্টা করে তাকে পাওয়া যায়নি। এমনকি ক্ষুদে বার্তা পাঠানো হলেও তার কোনো জবাব দেননি হুমায়ুন মাহমুদ।

সূত্রঃ ইত্তেফাক