করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জনসমাগম বন্ধে নগরীতে সেনা টহল শুরু হয়েছে। নগরীতে বন্ধ রয়েছে দোকানপাট। নগরীতে কমেছে জনসমাগম।

আজ বুধবার নগরীর প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে সেনা সদস্য বহণ করা গাড়ী বহর। সেনা টহল শুরুর পর নগরীজুড়ে জনসমাগম কমতে থাকে। সকাল ১০ টায় নগরীর কান্দিরপাড়,রাজগঞ্জ এলাকায় কুমিল্লায় সেনা সদস্যদের টহল দিতে দেখা যায়। এ সময় সেনা সদস্যরা হ্যান্ড মাইকে জনসমাগম না করার আহবান জানান।

সেনা টহল নিয়ে কুমিল্লা সেনানিবাসের ৩১ বীর ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে.কর্ণেল মাহবুব আলম জানান, সামাজিক দূরত্ব সৃষ্টির জন্য সেনা সদস্যরা যে সব যায়গায় জনসমাগম হয় সেসব জায়গায় টহল জারি রেখেছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়া পর্যন্ত সেনা টহল জারি থাকবে।

এদিকে কুমিল্লা দোকান মালিক সমিতির সভাপতি সানাউল হক ও সাধারণ সম্পাদক আতিকুল্লাহ খান খোকনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আজ ২৫ মার্চ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জেলার দোকানপাট বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত হয়। সে অনুযায়ী আজ পুরো নগরীজুড়ে কোথাও কোন প্রকার দোকানপাট খোলা হয় নি।

কুমিল্লা জেলা দোকান মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আতিক উল্লাহ খান বলেন, করোনা ভাইরাস সংক্রমন থেকে দোকান মালিক-বিক্রয় প্রতিনিধিসহ ক্রেতা সাধারণকে মুক্ত রাখতে জেলার দোকান মালিক সমিতি কর্তৃক আজ ২৫ মার্চ থেকে আগামী ৩১ মার্চ দোকান পাট বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। আজ বুধবার থেকে তা কার্যকর হচ্ছে। সম্পাদনা: জেরিন আহমেদ

এদিকে জেলার হোমনা উপজেলায় বেলা ১১ টায় করোনা ভাইরাস সংক্রমন প্রতিরোধে পুলিশ অভিযান পরিচালনা করে। পুলিশের অভিযানের পরে পুরো উপজেলায় শুনসান নিরবতা পরিলক্ষিত হয়।

কুমিল্লা জেলা পুলিশ সুপার মো: সৈয়দ নুরুল ইসলাম বিপিএম (বার), পিপিএম বলেন, জনসমাগম বন্ধে জেলা পুলিশ সদস্যরা বদ্ধ পরিকর। সে লক্ষ্য কাজ চলছে। পুলিশ সুপার মো:সৈযদ নুরুল ইসলাম আরো বলেন, আপনারা প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হবেন না।