সহকারী প্রধান কারারক্ষী ইয়াবা নিয়ে কারাগারে প্রবেশের সময় ধরা খেলেন। কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগারে এ ঘটনা ঘটে।

সহকারী প্রধান কারারক্ষী তরিকুল ইসলাম শাহিনকে ১০৪টি ইয়াবাসহ হাতেনাতে ধরেন সিনিয়র জেল সুপার মো. শাহজাহান আহমেদ।

পরে কারা ব্যারাকে তার রুম তল্লাসী চালিয়ে বিছানার নিচ থেকে আরো ৪১৬টি ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

আটককৃত তরিকুল ইসলাম শাহিন চট্রগ্রামের সিতাকুন্ড ইয়াকুব নগরের ফুল মিয়ার ছেলে। তিনি ১৯৯৬ সালের ১৫ জুন চাকুরীতে যোগদান করেন।

সোমবার দুপুরে কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার মো. শাহজাহান আহমেদ জানান, আমি কুমিল্লা কারাগারে যোগ দেয়ার পর জানতে পেরেছি সহকারী প্রধান কারারক্ষী মো. তরিকুল ইসলাম শাহিন (কারা রক্ষী নং ২১৫৯৯)কারাগারের ভিতর বন্দিদের কাছে মাদক কেনা বেচা করেন। তাকে হাতে নাতে ধরার জন্য আমরা প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নেই।

গোপন সংবাদে জানতে পেরেছি সোমবার তিনি ইয়াবা নিয়ে ডিউটিতে আসছেন। তাই আমরাও সতর্ক থাকি। বেলা সাড়ে ১১ টায় ভিতরে প্রবেশের সময় তাকে আমার রুমে ডেকে আনি।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলার মো. আসাদুর রহমানসহ অন্যান্য ডেপুটি জেলার। সবার সামনে সহকারী প্রধান কারারক্ষী তারিকুল ইসলাম শাহিনের দেহ তল্লাসী করলে তার পকেটে থাকা সিগারেটের প্যাকেটের ভিতর ১০৪টি ইয়াবা পাই। পরে কারাগারের অন্যান্য কর্মকর্তাদের নিয়ে ব্যারাকে তার রুমে তল্লাসী চালিয়ে বিছানার নিচ থেকে আরো ৪১৬টি ইয়াবা উদ্ধার করি।

তিনি দীর্ঘদিন ধরে কারাগারের ভিতর বন্দিদের মাঝে মাদক কেনা বেচার কথা স্বীকার করেছেন।

এ বিষয়ে কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানায় মামলা হয়েছে।

সূত্রঃ ডেইলি বাংলাদেশ

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: