কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার নিমসার এলাকায় সোমবার দুপুরে রুমি বেগম (৩০) নামের এক প্রবাসির স্ত্রী তার শিশু সন্তানদের ঘরের বাইরে রেখে সিলিং ফ্যানের সাথে ওড়না পেচিঁয়ে ফাঁস লাগিয়ে আতœহত্যার খবর পাওয়া গেছে।

স্থানীয় ও পুলিশ সুত্রে জানা যায়, জেলার দেবিদ্বার উপজেলার পাচরঙ্গী গ্রামের বাহরাইন প্রবাসী জালাল উদ্দিনের স্ত্রী ছিলেন রুমি বেগম। তিনি বেশ কিছুদিন যাবৎ বুড়িচং উপজেলার মোকাম ইউনিয়নের নিমসার এলাকায় মহিউদ্দিন নামের এক ব্যক্তির মালিকানাধীন ভবনের ৩ তলায় তার দু’শিশু সন্তান নিয়ে বসবাস করে আসছিলেন। স্থানীয় সুত্র আরো জানায়, রুমি বেগম দু’সন্তানের জননী। তার বড় সন্তান জাহিদ একই ব্যক্তির মালিকানাধীন বাসার পাশে থাকা মাদরাসাতুল ফাওতিল মদিনা নামের একটি আরবী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নুরানী শাখায় পড়া-লেখা করতো।

সোমবার দুপুরে রুমি বেগম মাদরাসায় এসে সন্তানকে নিয়ে ভবনের ৩ তলায় উঠে সন্তানদের বাইরে রেখে নিজে ঘরে প্রবেশ করে দরজা আটকে দেয়। বেশ কিছু সময় অপেক্ষায় থাকার পরও দরজা না খোলায় সন্তানরা ডাকাডাকি ও একপর্যায়ে কান্নাকাটি শুরু করলে প্রতিবেশীরা এসে ডাকাডাকি শুরু করে।

বিকেল ৪ টায় বিষয়টি বুড়িচং থানার দেবপুর ফাঁড়িকে জানালে এসআই এনামুল হকের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে এসে দরজা ভেঙ্গে বিকেল ৫ টায় ফ্যানের সাথে ওড়না পেচাঁনো ঝুলন্ত অবস্থায় রুমি’র লাশ উদ্ধার করে। সুরুতহাল রিপোর্ট শেষে লাশ দেবপুর ফাঁড়িতে নিয়ে আসে। আজ সকালে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: