কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ১৩ বছরে মূল ফটক নির্মাণ করা হয়নি। সমাবর্তনে কৃত্রিম গেইট(আর্টিফিসিয়াল) নির্মাণের আশ্বাস দিলে তাও নির্মাণ করা হয়নি। তবে ফটকের সামনে নামমাত্র ফেস্টুন গেইট দেওয়া হয়। এ নিয়ে সমাবর্তন নেওয়া ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন ধরণের মন্তব্য করছেন।

সরেজমিনে দেখা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটকে কৃত্রিম (আর্টিফিসিয়াল) গেইট নির্মাণ করা হয়নি। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রবেশধারে নামমাত্র ফেস্টুন গেইট করা হয়। বিভিন্ন সময়ে সমাবর্তনে কৃত্রিম গেইট নির্মাণ করা হবে বলে গণমাধ্যামে বক্তব্য দেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ড. আবু তাহের। তবে কৃত্রিম (আর্টিফিসিয়ালি) গেইট নির্মাণ না করায় সমাবর্তনে অংশ নেওয়া শিক্ষার্থীদের মধ্যেও ক্ষোভ বিরাজ করছে।

লোক প্রশাসন বিভাগের শিক্ষার্থী তানভিরুল হোসাইন বলেন, সমাবর্তন পাওয়া প্রতিটি শিক্ষার্থীদের গর্বের। সেই সমাবর্তনে ফোকাসে থাকে সমাবর্তনের গেইট কিন্তু সেটাও করা হয় নাই। আমাদের থেকে ৪৫০০ টাকা চাঁদা নেওয়া হয়েছে সেই পরিমাণ প্রাপ্যটা আমরা পাইনি।

মার্কেটিং বিভাগের শিক্ষার্থী মুমিন মোহাম্মদ বলেন, ‘স্পন্সরদের কৃত্রিম (আর্টিফিসিয়াল) গেইট করে দিবে বলে লিস্টে দেখেছি কিন্তু ২৬ তারিখের শেষ মুহুর্তেও সেই গেইট দেখতে পায়নি যা আমাদেরকে হতাশ করেছে। আমাদের অভিবাবকরাও চিনতে পারছে না কোনটা বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটক। কৃত্রিম গেইট করার ক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন গোঁজামিল করবে ভাবতেও পারিনি। এ যেন আই ওয়াশ-ওয়াশ।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ড. আবু তাহের বলেন, কৃত্রিম গেইট করার বিষয়ে সদস্য সচিবরা জানে। তাদের সাথে কথা বলতে বলেন তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ইভেন্ট ম্যানেজমেন্টের পেন্ডেল প্রস্তুত ও আসন বিন্যাসের সদস্য সচিব সহকারি অধ্যাপক জিয়া উদ্দিন সজিব বলেন, ‘কৃত্রিম গেইট করার কোন দায়িত্ব আমাকে দেওয়া হয়নি। যে অবয়বে গেইট করার জন্য বলা হয়েছে আমি সেভাবে করেছি।’

সূত্রঃ পূর্বপশ্চিমবিডি