কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি পাহাড়ে আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে।

রোববার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের পাশের এ ঘটনায় পাহাড়টির বিভিন্ন জায়গা পুড়ে গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে পরিচ্ছান্নতার নামে আগুন লাগানো হয়েছে। তবে এ আগুনের সূত্রপাত সম্পর্কে এখনো কিছু জানা যায়নি।

ঘটনাস্থলে থাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী জানান, সকালের দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন অফিসার পরিচ্ছন্নতার জন্য পাহাড়ে আগুন লাগিয়ে দেন। তবে পরিচ্ছন্নতার জন্য পাহাড়ে আগুন লাগানোর কথা অস্বীকার করেছেন এস্টেট শাখার সেকশন অফিসার।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক কর্মকর্তা বলেন, বিভিন্ন সময় ক্যাম্পাসে বহিরাগত বখাটের মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা হয়রানি ও ছিনতাইয়ের শিকার হয়। আর জঙ্গল থাকলে এ সমস্যা বেশি হয়। তাই হয়তো প্রশাসন থেকে জঙ্গল পোড়ানোর জন্য আগুন লাগানো হয়েছে।
এর আগে বিভিন্ন সময় পাহাড় কেটেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। পাহাড় কাটার দায়ে পরিবেশ অধিদপ্তর জরিমানাও করেছে প্রশাসনকে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী শামীম তাহমিদ বলেন, পাহাড়গুলো আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের সৌন্দর্য। পাহাড় পুড়িয়ে সৌন্দর্য নষ্ট করে ফেলছে আমাদের প্রশাসন। আশা করবো বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন পাহাড়ের বিষয়ে আরো দায়িত্বশীল হবে।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা শাখার সহকারী রেজিস্ট্রার ছাদেক হোসেন মজুমদার বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে পাহাড়ে আগুন লাগানো হয়নি। আগুন লাগার কথা শুনে আমরা তাড়াতাড়ি তা নিয়ন্ত্রণে আনার ব্যবস্থা করেছি।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: