মাহদী হাসানঃ বিভিন্ন কর্মসূচি পালনের মধ্য দিয়ে যথাযথ মর্যাদায় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে।

এ উপলক্ষে কলেজ অধ্যক্ষ মহোদয় এর নেতৃত্বে আজ সকাল ৭টা ৩০ মিনিটে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করণ, সকাল ৭টা ৪৫ মিনিটে ধর্মপুর ডিগ্রি শাখাস্হ জাতির পিতার ম্যুরাল- এ শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ, সকাল ৯ টায় টাউনহল থেকে পরিচালিত শোক র্যালী ও জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ, সকাল ১০টা ৩০ মিনিটে উচ্চ মাধ্যমিক শাখায় শিক্ষক পরিষদ মিলনায়তনে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ী শিক্ষার্থীদের পুরস্কার বিতরণ ও আলোচনা সভা এবং বাদ যোহর উভয় শাখার জামে মসজিদে দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর রুহুল আমিন ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন কলেজ উপাধ্যক্ষ প্রফেসর ড. আবু জাফর খান, শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক প্রফেসর বিজয় কৃষ্ণ রায়, যুগ্ম সম্পাদক বদরুন নাহার, কাজী আপন তিব্রানী, কোষাধ্যক্ষ ওয়ায়েছ আল কারণী মুন্সি, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ৪৪তম শাহাদত বার্ষিকী উদযাপন কমিটির আহবায়ক ও অর্থনীতি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মোঃ আসফাক হোসেন সহ সকল বিভাগের বিভাগীয় প্রধান এবং শিক্ষকবৃন্দ।

আলোচনা সভায় ১৫ ই আগস্ট জাতীয় শোক দিবস এর তাৎপর্য নিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর উপর একটি প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলা বিভাগের প্রফেসর ড. মেহেদী হাসান।

সভাপতির বক্তব্যে কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর রুহুল আমিন ভূঁইয়া বলেন,”বঙ্গবন্ধু তাঁর নেতৃত্ব গুণে মানুষকে আকৃষ্ট করেই জাতির পিতা হয়েছেন। বঙ্গবন্ধু মনে করতেন, সংহতি অনেক শক্তিশালী। এ জন্য বঙ্গবন্ধু মানবতার কল্যাণে, মানুষের অধিকার আদায়ের স্বার্থে সংহতি প্রকাশে বিশ্বাসী ছিলেন।”

সভাপতির বক্তব্যে তিনি আরও বলেন, “আগস্ট মানেই শোক। আমাদের এই শোককে শক্তিতে পরিণত করতে হবে। বঙ্গবন্ধুর জীবনাদর্শ থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে নিজেদের কর্মক্ষেত্রে সর্বোচ্চ টা দিতে হবে৷ তাহলেই বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ে তোলা সম্ভব হবে।”