ডেস্ক রিপোর্টঃ দলীয় কাজে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের(কুবি) বাস ব্যবহার করার অভিযোগ উঠেছে শাখা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে। শনিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব দুইটি বাস নিয়ে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ঢাকায় যান শাখা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা।

বিজ্ঞাপন

‘রাজনীতিমুক্ত’ ক্যাম্পাসে রাজনৈতিক সংগঠনের দলীয় কাজে বাস ব্যবহার নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন মহলে বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে। তবে পরিবহণ কমিটির উপদেষ্টা মোঃ এমদাদুল হক বলেন, বাস ছাত্রলীগকে দেওয়া হয়েছে কিনা তা আমি কিছুই জানি না।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ঢাকার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও পুনর্মিলনীতে যোগ দেয়ার উদ্যেশ্যে সকালে ঢাকায় কায় যান শাখা ছাত্রলীগ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের চার হলের নেতা-কর্মীরা। এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তাদের বহনকারী দুইটি হিনো বাস নিয়ে যান তারা। শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি লিখিত আবেদন করে বাস নেয়ার দাবি করলেও পরিবহণ কমিটির কাছে কোন আবেদন করা হয়নি বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন পুলের প্রশাসনিক কর্মকর্তা।

পরিবহন পুলের প্রশাসনিক কর্মকর্তা জাহিদুল আলম বলেন, ‘উপাচার্য ও রেজিস্ট্রার স্যারের আদেশেই আমি ছাত্রলীগকে বাস দিয়েছি। তবে কোন লিখিত পাইনি।’

রাজনৈতিক অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাস নেয়ার বিষয়ে প্রশ্ন করলে শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ইলিয়াস হোসেন সবুজ বলেন, ‘আজকে ছাত্রলীগের পুনর্মিলনী ও প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ছিলো। প্রধানমন্ত্রীর প্রোগ্রাম। আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র, বাসের ফি দেই, টাকা দেই। বাসের যে তেল খরচ সেটা প্রত্যেক শিক্ষার্থী আমরাও ১০০০ টাকা করে দিই। এটা আমাদের বৈধ অধিকার। আমরা প্রশাসনের কাছে আবেদন করেছি। প্রশাসন আমাদের বাস দিয়েছে।’

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার(অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. মোঃ আবু তাহেরের মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: