কুমিল্লার দেবীদ্বারে নিখোঁজের একদিন পর বাবুল মিয়া(৪২) নামে এক ট্রাক্টর এ মরদেহ উদ্ধার বরেছে দেবীদ্বার থানা পুলিশ। নিহত বাবুল মিয়া দেবীদ্বার পৌর এলাকার ভিংলাবাড়ি (দক্ষিণ-পূর্ব পাড়া পাড়া) গ্রামের মৃত: ওসমান গণির তৃতীয় ছেলে।

বিজ্ঞাপন

পুলিশ ও নিহতের পরিবার জানান, বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় খবর পেয়ে দেবীদ্বার থানার উপ-পরিদর্শক (এস,আই) সোহরাব হোসেন’র নেতৃত্বে একদল পুলিশ গোমতী নদীর ভিংলাবাড়ি ও বিনাইপাড় সীমান্ত এলাকা থেকে নদীর পাড়ের কাছে পানিতে ভাসমান অবস্থার তার মরদেহ উদ্ধার করেন। প্রথমে অজ্ঞাত লাশ হিসেবে চিহ্নীত হলেও পরে নিহতের পরিবার এসে তার পরিচয় নিশ্চিত করেন।

নিহতের মেয়ে (১৪) জানান, বুধবার রাত অনুমান ৮টায় তার বাবা ভাত খাওয়ার সময় ফোনে কে যেন ডেকে নিয়ে যায়। বাড়ি থেকে যাওয়ার পর বিলম্ব হওয়ায় আমরা বাবার ফোনে যোগাযোগ করলে ফোন বন্ধ পাই। আজ বিকেলে শোনতে পাই গোমতী নদী থেকে একজনের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। থানায় এসে লাশ দেখে আমার পিতাকে সনাক্ত করি।

নিহতের বড় ভাই অটো রিক্সা চালক বিল্লাল হোসেন(৪৫) একই কথা জানিয়ে বলেন, আমরা ৫ভাই সবাই আলাদা থাকি রাতে যখন শোনতে পাই আমার ভাই বাবুল মিয়া বাড়ি ফিরে নাই এবং তার মোবাইল ফোনেও যোগাযোগ করা সম্ভব হচ্ছেনা, তখন আমরা খোঁজতে বের হই। আজ বিকেল ৩টায় পুলিশ গোমতী নদীর বিনাইপাড় ও ভিংলাবাড়ি সীমান্ত এলাকায় ভাসমান অবস্থায় আমার ভাইয়ের মরদেহ উদ্ধার করেন।

এব্যপারে দেবীদ্বার থানার উপ-পরিদর্শক (এস,আই) সোহরাব হোসেন জানান, আমরা লাশ উদ্ধার করেছি, তবে এবিষয়ে ব্যাপক তদন্তের পূর্বে কিছু বলা যাবেনা। তবে নিহতের পরিবারের সদস্যদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে, তাদের ভাষ্যানুযায়ী যদি কেউ মোবাইল ফোনে তাকে ডেকে নিয়ে যায়, সেই মোবই ফোন নম্বর ট্রেকিং করে রেকর্ড শোনে ব্যবস্থা নেব। লাশ ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে এবং মামলা প্রক্রিয়াধীন।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: