মঙ্গলবার বিকাল ৩ টায় কুমিল্লার বুড়িচং -গোবিন্দ পুর – রামপুর পোস্ট অফিস সড়কের গোবিন্দপুর এলাকায় রেনোয়ারা (৪৫) নাম ৪ সন্তানের মানসিক ভারসাম্যহীন জননী অটোরিকশা সিএনজি হতে লাফ দিয়ে পড়ে ঘটনাস্থলে মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। খবর পেয়ে বুড়িচং থানার এস আই মোঃ আব্দুল জব্বার সঙ্গীয় ফোর্স সহ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায় জেলার বুড়িচং উপজেলার বুড়িচং -গোবিন্দপুর – রামপুর পোস্ট অফিস সড়কের পীর যাত্রাপুর ইউনিয়ন এর গোবিন্দ পুর গ্রামে গোমতী নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধের উপর বুড়িচং গামী যাত্রী বাহী সিএনজি থেকে হঠাৎ রেনোয়ারা বেগম নামের (৪৫) মানসিক ভারসাম্যহীন এক মহিলা লাফ দিয়ে সড়কে পড়ে মারাত্মক ভাবে আহত হয়। স্হানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার গোবিন্দ পুর বাজার পল্লী চিকিৎসক আলেক হোসনের নিকট প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য নিলে তাকে মৃত্যু ঘোষণা করেন।

নিহত রেনোয়ার বেগম স্হানীয় পীর যাত্রাপুর গ্রামের মৃত সুন্দর আলীর মেয়ে। তাকে সিলেট ছাতক এলাকার আপন জেঠাত ভাই ফজলুর রহমানের সঙ্গে বিয়ে হয়। বৈবাহিক জীবনে ৩ ছেলে, ১ মেয়ে রয়েছে। রেনোয়ারা বেগম দীর্ঘদিন ধরে মানসিক ভারসাম্যহীন ভাবে এলাকায় ঘুরাঘুরি করত। ঘটনার আগে তিনি গোবিন্দ পুর বাজার হতে বুড়িচং গামী যাত্রী বাহী সিএনজিতে উঠে। কিছু দূর আসার পর হটাৎ লাফ দিয়ে গোমতী নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধের উপর পড়ে এবং মারাত্মক ভাবে আহত হয়।

এব্যপারে বুড়িচং থানার ওসি মোঃ মোজাম্মেল হক পিপিএম বলেন দূর্ঘটনার খবর পেয়ে থানার এস আই মোঃ আব্দুল জব্বার কে সঙ্গীয় ফোর্স সহ ঘটনাস্থলে পাঠাই। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে। যাত্রী বাহী সিএনজির বিষয় পুলিশ তদন্ত অব্যহৃত আছে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: