কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার কোরপাই-আবিদপুর সড়কের আবিদপুর এলাকায় কালভার্ট ভেঙ্গে যাওয়ায় প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে।

সরেজমিন ঘুরে স্থানীয় বিভিন্ন সুত্রে পাওয়া তথ্যে জানা যায়, জেলার বুড়িচং উপজেলার মোকাম ইউনিয়নের কোরপাই-আবিদপুর সড়কটির অবস্থান। ৪ কিলোমিটার দীর্ঘ সড়কটির এই পথেই পাশ্ববর্র্তী দেবিদ্বার উপজেলার মোহনপুর ও বরকামতা ইউনিয়নের লোকজনদেরও যাতায়াতের অন্যতম উপায়। এই সড়ক পথেই রয়েছে বুড়িচংয়ের মোকাম ইউনিয়নের আবিদপুর, মিথলমা, মনঘাটা, কাকিয়ারচর, কোরপাই, দেবিদ্বারের বরকামতা ইউনিয়নের ব্রাহ্মনখাড়া, প্রেমু, ফাগুন্ডা, মোহনপুরের বিহারমন্ডল, ছোটনা, দীঘিরপাড়, শুভপুর, ফুলতলীসহ বেশ কিছু গ্রাম।

অপেক্ষাকৃত কৃষি নির্ভর এই গ্রামগুলোতে বারো মাসই নানা প্রকার শাক-সব্জিসহ বিভিন্ন ফসল উৎপাদন হয়। কাছাকাছিই দেশের অন্যতম বৃহৎ সব্জিবাজার নিমসারের অবস্থান হওয়ায় কৃষকরা তাদের উৎপাদিত ফসল বিক্রির জন্য নিমসার বাজারেই নিয়ে আসে। তাছাড়াও এই সড়ক পথেই চাকুরীজীবি,ব্যবসায়ী,শিক্ষার্থীরাও চলাচল করে। বিগত প্রায় ৬/৭ মাস আগে আবিদপুর গ্রামের সার্জেন্ট কাইয়ুমের বাড়ির সামনে থাকা সড়কটির কালভার্টটি ভেঙ্গে গেলে কার্যত যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে এই সড়কে চলাচলকারী হাজার হাজার বিভিন্ন শ্রেনী-পেশার মানুষ। এতে করে এখানকার কৃষকরা তাদের উৎপাদিত পন্য পরিবহন করতে না পারায় চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

স্থানীয় জসিম উদ্দিন, জহিরুল ইসলাম, কাসেমসহ একাধিক কৃষক জানান, আগে আমরা জমি থেকেই উৎপাদিত ফসল রিক্সা,ভ্যান,ইজিবাইক বা সিএনজি অটোরিক্সায় তুলে সরাসরি নিমসার বাজারে নিয়ে যেতাম। বর্তমানে কালভার্টটি ভাঙ্গা থাকায় দীর্ঘ পথ উৎপাদিত ফসল জমি থেকে মাথায় করে আবিদপুর গ্রামে নিয়ে এসে পরবর্র্তীতে বিভিন্ন বাহনে করে নিমসার বাজারে নিয়ে আসতে হয়। এতে করে মুজুরী খরচ বেড়ে যাওয়ায় লাভের পরিমানও কমে যাচ্ছে।

আবিদপুর এলাকার স্থানীয় আ’লীগ নেতা মোঃ জামাল উদ্দিন জানান, কালভার্টটি ভেঙ্গে যাওয়ার পর থেকে এই এলাকার লোকজন চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। তিনি আরো বলেন,বিষয়টি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা প্রকৌশলীকে জানিয়েছি।

বুড়িচং উপজেলা প্রকৌশলী অনুপ বড়–য়া বলেন, আমি বিষয়টি জেনেছি। যত দ্রুত সম্ভব কালভার্ট মেরামতের ব্যবস্থা করবো।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: