কুমিল্লার হোমনায় সাতটি চোরাই গরু উদ্ধার করেছে পুলিশ । বুধবার সন্ধ্যায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এএসপি (সার্কেল) মো. ফজলুল করিম ও ওসি মো. আবুল কায়েস আকন্দ এর নেতৃত্বে হোমনা থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে উপজেলার দুলালপুর ইউনিয়নের কাচারী কান্দি গ্রামের মো.মোতালেব হোসেন চৌধুরী প্রঃ জুলু মিয়া(৩৫) ডেইরী ফার্ম থেকে সাতটি চোরাই গরু উদ্ধার করা হয়েছে । উদ্ধারকৃত গরুর আনুমানিক বাজার মূল্য ৬ লাখ ৮৫ হাজার টাকা বলে জানান গরুর মালিকরা । ডেইরী ফার্মের মালিক পলাতক থাকলেও তার স্ত্রী লিপি আক্তার (৩০) কে আটক করেছে পুলিশ ।

থানা সূত্রে জানা গেছে, গত ১৬ মার্চ উপজেলার জয় নগর গ্রামের মো, আমির হোসেনের দুইটি গরু তার বাড়ি থেকে চুরি হয়। আমির হোসেন গোপনীয় ভাবে কাচারীকান্দি গ্রামের মোতালিবের ফার্মে গরুর খোঁজ পেয়ে পুলিশে খবর দেয় । এএসপি সার্কেল ও ওসির নেতৃত্বে পুলিশ এসে গরু দুই গরু উদ্ধার করে থানায় নিযে য়ায় । কিন্তু তার ফার্মে আরো ৫টি গরুর আছে। ঘটনা জানাজানি হলে যাদের গরু চুরি হয়ে তারা তাদেও গরু শনাক্ত করে মালিকানা দাবী করেন । গ্রেফতারকৃত মোতালেব হোসেন চৌধুরী প্রঃ জুলু মিয়া এর স্ত্রী লিপি আক্তার(৩০) জানায় উদ্ধারকৃত গরু সমূহ হোমনা এলাকার চিহ্নিত গরু চোর কামাল মিয়া (৪২), পিতা-মৃত আনোয়ার আলী, সাং-লটিয়া এবং তাহার সহযোগীদের নিকট হইতে প্রায় অর্ধেক দামে বিভিন্ন সময়ে ক্রয় করিয়া অধিক দামে বিক্রয়ের জন্য নিজের গোয়াল ঘরে রাখিয়াছে। চোরাই গরু উদ্ধারের পর গরুর প্রকৃত মালিকগন তাহাদের নিজ নিজ গরু সনাক্ত করিয়াছে। এ ব্যাপারে থানায় গরু চুরির মামলা হয়েছে ।

এ ব্যাপারে হোমনা- মেঘনা সার্কেল সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. ফজলুল করিম বলেন, উপজেলার কাচারিকান্দি গ্রামে অভিযান চালিয়ে জুলু মিয়ার ফার্ম থেকে বিভিন্ন সময়ে চুরি হওয়া ৭ টি গরু উদ্ধার করি। এ ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছে । বাকি আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে ।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: