এম.এইচ মনির।। কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্বা আ.ক.ম বাহাউদ্দিন বাহার এমপি বলেছেন, আমাকে দল থেকে সরিয়ে দিতে নানামূখি ষড়যন্ত্র করা হয়েছিল। আমি বঙ্গবন্ধুর সানিধ্য পেয়েছিলাম। বঙ্গবন্ধুর হাতের সংম্পর্শে ও ভালোবাসায় আমি সিক্ত হয়েছিলাম। তাই বঙ্গবন্ধুর আদর্শের কর্মী বাহারকে কখনো বঙ্গবন্ধুর আদর্শ দূরে সরিয়ে দেওয়া যায় নি। ২৩ বছর দলে পদ বঞ্চিত ছিলাম। যখনই প্রয়োজন হয়েছে দলের জন্য নেত্রীর জন্য জীবন বাজি রেখে রাজপথে নেমেছি। শত ষড়যন্ত্র করেও শেখ হাসিনার হ্রদয় থেকে আমাকে মুছে দিতে পারেনি। ২৩ বছর পর নেত্রী আমার আমাকে মহানগর আওয়ামী লীগের দায়িত্ব তুলে দিয়েছেন। নেত্রী যখন আমাকে মহানগর আওয়ামী লীগের দায়িত্ব দেয় তখন কথা দিয়েছিলাম ‘ কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগকে সারা দেশের সেরা সুসংগঠিত ও শক্তিশালী সংগঠন উপহার দিব। আজ কুমিল্লার ঘরে আওয়ামী লীগ,যুবলীগ ,ছাত্রলীগ ,স্বেচ্ছাসেবক লীগ,শ্রমিক লীগ তৈরী হয়েছে। কুমিল্লা আজ মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জ্বিবিত। একসময় পকেট কমিটি দিয়ে কুমিল্লায় আওয়ামী লীগ চলেছে। আমরা আজ সম্মেলন করে দলের ত্যাগী-পরীক্ষিত কর্মীদের দিয়ে কমিটি করছি। কুমিল্লাকে আজ শেখ হাসিনার দূর্গ হিসেবে গড়ে তুলবো। আমরা নেতা বানাব মাস্তানী করার জন্য নয়,মানুষের জন্য কাজ করার জন্য,মানুষের মন জয় করার জন্য।

>>আরো পড়ুনঃ  কুমিল্লায় জাতির পিতা ও বঙ্গমাতা ফুটবল খেলার পুরস্কার বিতরণ

সোমবার রাতে নগরীর ভিক্টোরিয়া কলেজ উচ্চ মাধ্যমিক শাখা মাঠে ১১ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে হাজী বাহার এমপি এসব কথা বলেন।

কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের সেক্রেটারী আরফানুল হক রিফাত এর সভাপতিত্বে ওই কর্মীসভায় সভায় বক্তব্য রাখেন মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এড.জহিরুল ইসলাম সেলিম, আবদুল আলিম কাঞ্চন, সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল হাই বাবলু, চিত্ত রঞ্জন ভৌমিক, মহানগর যুবলীগের আহবায়ক জিএস আবদুল্লাহ আল মাহমুদ সহিদ, জাগ্রত মানবিকতার সাধারন সম্পাদক তাহসিন বাহার সূচনা, মহানগর যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক হাবিবুল আল আমিন সাদি,মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারন সম্পাদক সাদেকুর রহমান পিয়াস, মহানগর ছাত্রলীগের আহবায়ক আবদুল আজিজ শিয়ানুক প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন মহানগর আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শাহেরীন সাহের।

>>আরো পড়ুনঃ  ফুটবল খেলা নিয়ে কুমিল্লা জিলা স্কুলে সংঘর্ষ

এসময় আদর্শ সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এড.আমিনুল ইসলাম টুটুুলসহ মহানগর আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ সহ এলাকার বিভিন্ন পেশার বিপুল সংখ্যক মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনা সভা শেষে সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশনে কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্বা আ.ক.ম বাহাউদ্দির বাহার এমপি শাহাজাদা গিয়াসউদ্দিন (মিয়া ভাই) কে সভাপতি ও কে এম আবদুল কাইয়ুম ফারুককে সাধারন সম্পাদক করে কুমিল্লা মহানগর ১১ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ৬৯ সদস্যের কমিটির নাম ঘোষনা করেন।

এসময় নেতা-কর্মীরা বিপুল করতালির মাধ্যেমে নতুন কমিটির নেতৃবৃন্দকে অভিনন্দন জানান।