করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে চিকিৎসাধীন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আবদুল মতিন খসরুর শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়েছে। তিনি ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন।

আজ মঙ্গলবার সকালে তাঁকে লাইফ সাপোর্টে নেওয়া হয় বলে জানিয়েছেন ‘আবদুল মতিন খসরু অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটস’-এর আইনজীবী ও তাঁর ভাগনে তাফসির আহমেদ খান। তাঁর সুস্থতার জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন তাঁর পরিবারের সদস্যরা।

সাবেক আইনমন্ত্রী আবদুল মতিন খসরুর করোনা পরীক্ষা করা হয় ১৫ মার্চ। পরদিন সকালে পরীক্ষার ফল পজিটিভ আসে। সেদিন দুপুর ১২টার দিকে তাঁকে ঢাকার সিএমএইচে ভর্তি করা হয়। তারপর থেকে সেখানেই চিকিৎসাধীন আছেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নবনির্বাচিত সভাপতি জ্যেষ্ঠ এই আইনজীবী। ২৮ মার্চ তাঁকে হাসপাতালটির নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) স্থানান্তর করা হয়। পরে অবস্থার উন্নতি হলে ৩১ মার্চ মতিন খসরুকে কেবিনে নেওয়া হয়। শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে ৬ এপ্রিল তাঁকে আবার আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়। এর আগে ১ এপ্রিল তাঁর করোনা পরীক্ষার ফলাফলে নেগেটিভ আসে।

আইনজীবী তাফসির আহমেদ খান বলেন, ‘শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে বেলা ১১টার দিকে মামাকে (আবদুল মতিন খসরু) লাইফ সাপোর্টে নেওয়া হয়। তিনি নিবিড় পর্যবেক্ষণে আছেন।’

উল্লেখ্য, গত ১০ ও ১১ মার্চ সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচন (২০২১-২২) অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে সভাপতি পদে নির্বাচিত হন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী আবদুল মতিন খসরু।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: