কুমিল্লা নগরীতে যৌতুক না পেয়ে পিংকি আক্তার (২২) নামের ৮ মাসের অন্তঃসত্ত্বা এক গৃহবধূকে তাঁর স্বামী পিটিয়ে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত বিল্লাল হোসেনকে আটক করে স্থানীয়রা পুলিশে সোপর্দ করেছে।

শনিবার (২৪ জুলাই) দুপুরে তাকে আদালতের মাধ্যমে কুমিল্লা কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

অভিযুক্ত বিল্লাল নগরীর টিক্কাচর এলাকার বারেক মিয়ার ছেলে। আর নিহত পিংকি আক্তার একই এলাকার সাহিদ মিয়ার মেয়ে। শুক্রবার (২৩ জুলাই) রাতে টিক্কাচর এলাকায় এই হত্যার ঘটনা ঘটে।

নিহতের পরিবার ও স্থানীয় সূত্র জানায়, পিংকি আক্তার সৌদি আরব ও ওমানে শ্রমিকের কাজ করতেন। তিনি ৪ বছর আগে দেশে ফেরার পর প্রেম করে মাটি পরিবহনের ড্রামট্রাক চালক বিল্লাল হোসেনকে (৩৭) বিয়ে করেন। এর আগে একাধিক বিয়ের বিষয়টি তার কাছে গোপন রাখে বিল্লাল। বিয়ের পর থেকে বিল্লাল প্রায়ই যৌতুকের জন্য তার স্ত্রীকে নির্যাতন করতো। এরই মধ্যে গাড়ি কেনা ও ঘর তৈরির জন্য যৌতুক হিসেবে পিংকি আক্তার কয়েক দফায় তাকে টাকা দেয়। ইতিপূর্বে সে একাধিকবার তার স্ত্রী ও শাশুড়িকে কুপিয়ে আহত করে।

সর্বশেষ শুক্রবার রাতে আবারও যৌতুকের জন্য বিল্লাল তার স্ত্রীকে পেটাতে শুরু করে। এতে সে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর গভীর রাতে তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনার পর স্থানীয়রা বিল্লালকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে।

শনিবার সন্ধ্যায় কুমিল্লা কোতোয়ালি মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) কমল কৃষ্ণ ধর জানান, এ ঘটনায় নিহতের মা রেহেনা বেগম বাদি হয়ে বিল্লাল হোসেনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন। পরে দুপুরে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

সুত্রঃ বার্তা ২৪

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: