নিজস্ব প্রতিবেদকঃ আজ সোমবার থেকে এইচএসসি পরীক্ষা শুরু হচ্ছে। তাই শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা মোতাবেক কোচিং সেন্টার বন্ধে মাঠে নেমেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। রোববার দিনভর কুমিল্লা নগরীর বিভিন্ন কোচিং সেন্টারগুলোতে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় আর্থিক জরিমানা আদায় এবং কোচিং সেন্টার বন্ধে সংশ্লিষ্ট পরিচালক ও ভবনের মালিকদের সতর্ক করে দেয়া হয়।

জানা যায়, কুমিল্লা নগরীর খ্যাতনামা প্রতিষ্ঠান এবং অভিজাত এলাকা ঘিরে সরকারি নীতিমালা অমান্য করে একের পর এক কোচিং সেন্টার গড়ে উঠেছে। শিক্ষার্থীরাও ক্লাসে না গিয়ে কোচিং নির্ভর লেখাপড়ায় ঝুঁকে পড়ছে। এসব বন্ধে ২০১২ সালে নীতিমালা করা হলেও কেউই এর তোয়াক্কা না করে কোচিংয়ের নামে শিক্ষাকে বাণিজ্যের দিকে ধাবিত করছে।

এছাড়াও বিভিন্ন পাবলিক পরীক্ষা চলাকালে এসব কোচিং সেন্টার থেকে প্রশ্ন ফাঁসের বিষয়ে পরীক্ষার্থীদের তকমা দেয়া হয়। তাই শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশ অনুসারে রোববার দিনভর কুমিল্লা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না মাহমুদ ও কানিজ আফরোজের নেতৃত্বে নগরীর বাদুরতলা, তালপুকুরপাড়, নজরুল এভিনিউ ও ঠাকুরপাড়সহ অন্যান্যা এলাকায় বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় সরকারি নির্দেশনা উপেক্ষা করে কোচিং সেন্টার পরিচালনা করায় সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান থেকে আর্থিক জরিমানা আদায় করা হয়।

এদিকে রোববার বিকেলে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বাবুল সূত্রধর ও ফজলে এলাহীর নেতৃত্বেও পৃথকভাবে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: