কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে রাবেয়া আক্তার (২০) নামে এক তরুণীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। রবিবার উপজেলার মাদ্রা গ্রামের পূর্বপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। রাবেয়া ওই গ্রামের আলী মিয়ার মেয়ে। নাঙ্গলকোট থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে বলে জানান।

বিজ্ঞাপন

এ বিষয়ে নিহতের নানী জমিলা খাতুন (৭০) বলেন, রবিবার সকালে তার মেয়ে জাহানারা বেগম মাদ্রা বাজার যায়। এসময় মোরটসাইকেলে করে তিনজন লোক তাদের বাড়িতে আসে। তিনি বলেন, আমি মনে করেছি তারা ব্যাংকের লোক।

নিহতের মা জাহানারা বেগম বলেন, রবিবার সকাল ১১টার দিকে আমি বাজার থেকে বাড়িতে আসি৷ মাকে জিজ্ঞাসা করি রাবেয়ার কথা। মা বলে, তিনজন লোক বাড়িতে আসছে তাদের সাথে কথা বলতেছে। তুমি ঘরে গিয়ে দেখো। সঙ্গে সঙ্গে আমি ঘরে গিয়ে দেখি, আমার মেয়ের নিথর দেহ মাটিতে পড়ে আছে। তিনি আরও বলেন, তাঁর মেয়ের সাথে একই গ্রামের আবুল কালাম ও তাঁর ভাই লিটনের সাথে বিরোধ ছিল। তাঁরা বিভিন্ন সময় তাঁর মেয়েকে হত্যার হুমকিও দিয়েছে। যা নিয়ে এলাকায় সালিস হয়। এ ঘটনা তারাও করতে পারে অভিযোগ করেন জাহানারা।

নাঙ্গলকোট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসার পর বিস্তারিত জানা যাবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: