কুমিল্লায় দাবীকৃত চাঁদা না দেয়ায় এক ব্যবসায়ীকে বেধরক পিটিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এমন অভিযোগে মামলা হলেও এখনো আসামীরা ধরা ছোঁয়ার বাহিরে। এতে করে আতংকে দিন পার করছে ভুক্তভোগী ওই ব্যবসায়ী।

গত ৭ আগষ্ট রাত ১১ টায় কুমিল্লা আড়াইওড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলার আড়াইওড়া এলাকার মোঃ মোহন মিয়ার ছেলে মোঃ আবদুর রহিম।

এ বিষয়ে ৫ সেপ্টেম্বর কুমিল্লার আদালতে শাসনগাছা এলাকার ইকবাল হোসেনের ছেলে মোঃ শাখাওয়াত হোসেন শাক্কুসহ ৮ জনের নামোল্লেখসহ অজ্ঞাতদের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী আবদুর রহিমের ছোট ভাই মোঃ সোহেল রানা।

মামলা দায়ের হওয়ার চারদিন পার হলেও পুলিশ আসামী ধরতে পারে নি। এতে করে আতংকিত ভুক্তভোগী ব্যবসায়ীর পরিবার।

ব্যবসায়ী আবদুর রহিম জানান, ঘটনার আগ বেশ কিছু দিন ধরে চাঁদা চেয়ে আমাকে নানা হুমকি ধমকি দেয় নগরীর শাসনগাছা এলাকার ইকবাল হোসেনের ছেলে শাখাওয়াত হোসাইন শাক্কু। আমি চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে আমাকে নানান ভাবে হুমকি ধমকি দেয়।

পরে গত ৭ অগাস্ট রাতে ব্যবসায়ীক কাজ শেষে বাড়ী ফেরার পথে শাখাওয়াত হোসেন শাক্কু ও তার বাহিনীর অন্য সদস্যরা আমাকে বেধরক পেটায়। এ সময় ধারালো অস্ত্রের আঘাতে আমার মাথা কেটে যায়। অন্তত ৫ টি সেলাই লাগে। এ ঘটনায় শাক্কুসহ ৮ জনের নামোল্লেখ করে কুমিল্লার আদালতে একটি মামলা দায়ের করি। তবে গত ৫ অগাস্ট মামলা দায়ের করলেও এখনো আসামীরা ধরাছোঁয়ার বাহিরে। খুব আতংকিত অবস্থায় আছি।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত শাখাওয়াত হোসেন শাক্কুর ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে কল করলে তা বন্ধ পাওয়া যায়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কোতয়ালী মডেল থানার উপপরিদর্শক মেহেদী জানান, আমরা ঘটনাস্থলে গিয়েছি। আসামী গ্রেফতারের বিষয়ে আমরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। এ বিষয়ে পরে বিস্তারিত জানাবো।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: