মেজো ছেলে সাব্বির আহমেদ (১৯) পেশায় সিএনজিচালিত অটোরিকশাচালক। গতকাল মঙ্গলবার রাত ১০টার পর ছেলে বাড়ি না ফেরায় তাঁকে খুঁজতে ঘর থেকে বেরিয়ে যান তাঁর মা শাহনাজ বেগম। এর ঘণ্টাখানেক পর ছেলে বাড়ি ফিরে আসেন। কিন্তু মা আর রাতে ফেরেননি। পরিবারের সদস্যরা সারা রাত শাহনাজ বেগমকে বিভিন্ন স্থানে খুঁজেও কোনো হদিস পাননি।

আজ বুধবার সকাল ১০টায় কুমিল্লার তিতাস উপজেলার ভিটিকান্দি ঈদগাহ মাঠের পাশে শাহনাজ বেগমের (৪৫) লা’শ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয় ব্যক্তিরা পুলিশে খবর দেন। পুলিশ গিয়ে ঘটনাস্থল থেকে লা’শটি উদ্ধার করে। তবে তাঁর বাঁ চোখ উপড়ানো ছিল। ধারণা করা হচ্ছে, দুর্বৃত্তরা তাঁকে হ’ত্যা করে ফেলে রেখে গেছে। নি’হত শাহনাজ বেগম তিতাস উপজেলার পোড়াকান্দি গ্রামের আসামুদ্দিনের স্ত্রী।

তিতাস থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুধীন চন্দ্র দাস বলেন, লা’শটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজের মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহত নারীর বাঁ চোখটি নষ্ট হয়ে গেছে। তাঁর লা’শ দীর্ঘ সময় ডোবার মধ্যে ছিল। কেউ ডোবা থেকে লা’শ পাড়ে এনে রেখেছিলেন।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: