ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লায় নাশকতার উদ্দেশ্যে পেট্রোল বোমা তৈরির প্রশিক্ষণের অভিযোগে বিএনপির ১২ নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ব্যাপারে কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের ২১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কাজী মাহবুবুর রহমানসহ বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের ৩২ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামাসহ ৬২ জনের বিরুদ্ধে সদর দক্ষিণ মডেল থানায় মামলা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতদের আজ বিকালে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার একটি মামলার রায়কে কেন্দ্র করে নাশকতা সৃষ্টির উদ্দেশ্যে তারা শুক্রবার সন্ধ্যায় জেলার সদর দক্ষিণ উপজেলার বিজয়পুর উচ্চবিদ্যালয় এলাকায় গোপনে সংগঠিত হয়ে পেট্রোল বোমা তৈরির প্রশিক্ষণ নিচ্ছিল। গোপন সূত্রে এমন খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে। এ ব্যাপারে থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের ২১নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর কাজী মাহবুবুর রহমান, ২৫নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর খলিলুর রহমান মজুমদার, উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি ভিপি আবদুল্লাহসহ ৩২ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরও ৩০ জনের বিরুদ্ধে শুক্রবার গভীর রাতে মামলা হয়েছে।

গ্রেফতারকৃত বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীরা হলেন- তারিফুল ইসলাম, জামাল হোসেন, আজাদ, সোলেমান, জহির, আনিছুর রহমান, নাছির, ইকবাল, সাইফুল ইসলাম ইয়াছিন, রুবেল হাসান, নাজমুল হাসান, নাজমুল হাসান রনি। শনিবার সন্ধ্যায় সদর দক্ষিণ মডেল থানার ওসি নজরুল ইসলাম জানান, আসামিরা রেললাইন উপড়ে ফেলাসহ বিভিন্নভাবে নাশকতা সৃষ্টি ও ধ্বংসাত্মক কর্মকান্ড করার জন্য পেট্রোল বোমা বানানোর প্রশিক্ষণ নিচ্ছিল। পলাতক আসামিদের গ্রেফতারের জন্য পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে।

এ বিষয়ে কাউন্সিলর কাজী মাহবুবুর রহমান জানান, ‘যে সময়ে (শুক্রবার) ঘটনা দেখিয়ে পুলিশ মামলা করেছে ওই সময় আমি রোটারি ক্লাবের একটি অনুষ্ঠানে চট্টগ্রামে অবস্থান করি, এখনো আমি চট্টগ্রামে আছি। আমি জেনেছি- ওই সময়ে স্থানীয় ছাত্রদল ও ঐক্য সংহতি পরিষদের কর্মীরা ২১শে ফেব্রুয়ারিকে সামনে রেখে অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি সভা করছিল। নেতা-কর্মীদের হয়রানি করার জন্য রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে এ মামলাটি দায়ের করা হয়েছে।’

সূত্রঃ বাংলাদেশ প্রতিদিন

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: