কুমিল্লায় দ্বিতীয় স্ত্রীর বাসায় হাজি কাউছার (৫০) নামে এক ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়েছে। তার গলায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (৮ জুন) দুপুরে ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহ মৃতের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় কুমিল্লা কোতোয়ালি মডেল থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

মৃত কাউছার উত্তর চর্থার বাসিন্দা। তিনি কুমিল্লা নগরীর রাজগঞ্জ বাজারের মদিনা পেপারের স্বত্বাধিকারী। দীর্ঘদিন ধরে সেখানে ব্যবসা করতেন।

নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, সোমবার রাত ১০টার দিকে তার ছোট ভাইয়ের মোবাইলে একটি মেসেজ আসে, ‘কাউছার মারা গেছে। তার মরদেহ নগরীর একটি হাসপাতালে আছে।’

খবর শুনে সেখানে উপস্থিত হন স্বজনরা। পরে গলায় আঘাতের চিহ্ন দেখে পুলিশকে খবর দিলে রাতে কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়।

কাউছারের ছোট ভাই ছিদ্দিকুর রহমান বলেন, ‘দ্বিতীয় স্ত্রী মিথিলা আক্তার বিথির বাসায় ছিলেন ভাই। তার সঙ্গে কারও বিরোধ ছিল না। আমরা এটাও স্পষ্ট নই, এটা হত্যা নাকি স্বাভাবিক মৃত্যু। গলায় আঘাতের চিহ্ন থাকায় পুলিশে খবর দিই।’

কোতোয়ালি মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) কমল কৃষ্ণ ধর জানান, নিহতের গলায় অর্ধচন্দ্রাকৃতির দাগ ছিল। এখন নির্দিষ্ট করে কিছু বলতে পারছি না। তদন্তসাপেক্ষে বোঝা যাবে, এটা হত্যা নাকি অন্যকিছু।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: