আজ ২৭শে এপ্রিল (মঙ্গলবার) সকাল সাড়ে ৯টা কুমিল্লা মেডিকেল হসপিটালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন বরুড়ার সাবেক এমপি মাহবুবুর রহমান ভুইয়া। ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্নাইলাহি রাজিউন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স ৭৩ বছর। মরহুম মাহবুবুর রহমান স্ত্রী (শিক্ষিকা) এক ছেলে (বিবিএ) ও এক মেয়ে ( ডাক্তার) সহ অসংখ্যগুণীজন রেখে যান।

মাহবুবুর রহমান ভূইয়া বরুড়া উপজেলা আগানগর ইউনিয়নের গোয়ালিয়া (চুনারিখলা) ভুইয়া বাড়িতে ১৯৪৮ সালে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৬২ সালে অষ্টম শ্রেণীতে পড়াকালীন হামিদুর রহমান শিক্ষা কমিশনের বিরুদ্ধে আন্দোলনে যোগদানের মাধ্যমে তার রাজনীতির শুভ সূচনা হয়। তিনি পাকিস্তান আমলে ছাত্ররাজনীতিতে গৌরবোজ্জ্বল ভূমিকা পালন করেন। তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ছিলেন।

১৯৬৯ সালে গণআন্দোলনে ১১ দফার আন্দোলন ভূমিকা পালন করেন। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন। ১৯৭৮ সালে জাতীয়তাবাদী দলে যোগদান করেন এবং বরুড়া উপজেলা জাতীয়তাবাদী দলের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

১৯৮৮ সালে চতুর্থ জাতীয় সংসদ কুমিল্লা-৭ বরুড়া নির্বাচনী এলাকা জাতীয় পার্টি থেকে জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৮৮ থেকে ১৯৯০ সাল পর্যন্ত সংসদ সদস্য ছিলেন। বর্তমানে কুমিল্লা জেলা জাতীয়তাবাদী দলের সহ-সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

তিনি নিজ এলাকা বড় হাতুয়া উচ্চ বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন এবং দীর্ঘদিন ধরে উক্ত প্রতিষ্ঠানের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। কুমিল্লাস্থ বরুড়া উপজেলা উন্নয়ন সমিতির প্রধান উপদেষ্টা হিসাবে ছিলেন। তাছাড়াও তিনি বিভিন্ন সমাজসেবা মূলক কর্মকান্ডে জড়িত ছিলেন।

মরহুম মাহবুবুর রহমান ভুইয়া মেয়ে ডাঃ ফারজানা তিশা বলেন, আমার বাবা করোনা উপসর্গ নিয়ে হসপিটালে ভর্তি হয়েছেন। তার করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। আমার বাবা মানবকল্যাণে কাজ করেগেছেন। তিনি পরিছন্ন রাজনীতি করেগেছেন। আমার বাবার জন্য সবাই দোয়া করবেন।

এমপি মাহবুবুর রহমানের মৃত্যুতে বরুড়ার সাবেক এমপি জাকারিয়া তাহের সুমন শোক প্রকাশ করেছেন।

উল্লেখ, গত ৯ এপ্রিল করোনা উপসর্গ নিয়ে কুমিল্লা মেডিকেল হসপিটালে ভর্তি হোন। করোনা রিপোর্টে নেগেটিভ আসে। হসপিটালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: