ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ (কুমেক)-এর শিক্ষার্থীদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় পাঁচ জন ইন্টার্ন ডাক্তারসহ আট শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ক্যাম্পাসে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

কুমেক অধ্যক্ষ ডা. মহসিন-উজ-জামান চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। জানানো হয়, ৩-৬ মাসের জন্য কলেজ ও হোস্টেল থেকে সাময়িকভাবে বহিষ্কৃতরা হচ্ছেন- ওমর ফারুক, রেদোয়ান হোসেন, প্রণব সাহা, হাসিবুল হক অর্ণব, মীর তানভীর, রাহুল হাওলাদার, আনোয়ার হোসেন ও এএসএম আবদুল্লাহ।

কলেজ সূত্র জানায়, কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজের দ্বিতীয় ব্যাচের ছাত্র হান্নান ও অষ্টম ব্যাচের ছাত্র পলাশের নেতৃত্বে কুমেক ক্যাম্পাসে ছাত্রলীগের রাজনীতি পরিচালিত হয়ে আসছে। গত ৩১ অক্টোবর রাতে তাদের নেতৃত্বে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে পাঁচ শিক্ষার্থী আহত হন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তিন শিক্ষর্থীকে আটক করে। পরে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে বিচারের আশ্বাসের মাধ্যমে মুচলেকা নিয়ে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানার ওসি আবু ছালাম মিযা জানান, ছাত্রদের দুই গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে। কর্তৃপক্ষ কয়েকজনকে বহিষ্কারও করেছে। ক্যাম্পাসে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

এ ব্যাপারে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. মহসিন-উজ-জামান চৌধুরী বলেন, কুমেকের পরিস্থিতি অশান্ত করতে দেওয়া হবে না, তাই সংঘর্ষের ঘটনায় আট ছাত্রকে সাময়িক বহিষ্কার করাসহ ঘটনার সঙ্গে বিভিন্নভাবে জড়িত অন্যদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। তিনি আরও জানান, সংঘর্ষের পর কুমেক হোস্টেলের ডাইনিং ও মনিটরিং কমিটি ভেঙে দেওয়া হয়েছে।
সূত্রঃ বাংলাট্রিবিউন

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: