কুমিল্লা -৫ বুড়িচং ব্রাহ্মণপাড়া আসনে আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন নিয়ে নেতাকর্মীদের মাঝে চলছে স্নায়ুযুদ্ধ। সেইসাথে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও যুদ্ধ চলছে। নিজ নিজ নেতাদের পক্ষে মনোনয়ন প্রাপ্তির খবর পৌছানো হচ্ছে এবং প্রতিদ্বন্দী প্রার্থীদের নিয়ে ব্যপক প্রচারণা চালানো হচ্ছে। মিনিটে মিনিটে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্রেকিং নিউজ আসছে। ওমুক নমিনেশন পেয়ে গেছেন। সময় সময় বুলেটিন আসছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। পাশাপাশি নেগেটিভ নিউজ ও বাড়ছে। প্রার্থীদের বিরুদ্ধে অনলাইনে চলছে প্রচারণা।

সমর্থকদের এই স্নায়ু যুদ্ধ মাঝে মাঝে হাস্যরসেরও সৃষ্টি করছে। আজ পর্যন্ত ৩৫জন সম্ভাব্য প্রার্থী দলীয় মনোনয়ন চেয়ে দলের নিকট আবেদন করেছেন। সম্ভাব্য প্রার্থীরা মাঠ ছেড়ে এখন ঢাকায়। সাথে রয়েছেন নিজ নিজ সমর্থকরা। ঢাকায়ও শোডাউন চলছে। মনোনয়ন পত্র দলীয় কার্যালয়ে জমাকে কেন্দ্র করেও শোডাউন এর পাশাপাশি নানা ধরনের মেরুকরণ চলছে। কেন্দ্রীয় নেতাদের দ্বারে দ্বারে জীবনী নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন মনোনয়ন প্রত্যাশীরা।

হেভিওয়েট প্রার্থীরা আছেন মহাটেনশনে। হেভিওয়েট প্রার্থীদের বিষোদগার করে অনলাইন পোর্টাল ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কুৎসা রটানো হচ্ছে। এরই মধ্যে কয়েকজন প্রার্থী এ ব্যপারে থানায় জিডিও করেছেন। এত হাঁক ডাক আর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সরগরম থাকলেও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দলীয় মনোনয়ন বোর্ড কাকে মনোনয়ন দেন সেটাই দেখার বিষয়। কিন্তু তারপরও মনোনয়ন প্রত্যাশী ও তাদের সমর্থকদের কর্মকাণ্ড আওয়ামীলীগের মাঠ পর্যায়ের চেইন অব কমান্ডকে প্রশ্নবিদ্ধ ও করে তুলছে। আবার হাস্যরসেরও সৃষ্টি করছে। কেউ কেউ নির্বাচনের নামে মাঠ দখলেরও চেষ্টা চালাচ্ছে। রাজনীতির মাঠে বিশেষ করে আওয়ামী রাজনীতিতে সামান্যতম ভূমিকা নেই এমন লোকজনও দলীয় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করায় হাস্যরসের সৃষ্টি হয়।

জানা যায়, আগামী ১২/১৩ জুন সিদ্ধান্ত হতে পারে কে পাচ্ছে নৌকা। সে পর্যন্ত স্নায়ুযুদ্ধ চলতে থাকবে বলে অনেকেই মনে করেন।

সূত্রঃ গোমতী সাংবাদ

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: