মাজহারুল ইসলাম বাপ্পিঃ “মাছ চাষে গড়বো দেশ,বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ” “মৎস্য সেক্টরের সমৃদ্ধি,সুনীল অর্থনীতির অগ্রগতি” এ শ্লোগানকে সামনে রেখে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ ২০১৯ উপলক্ষ্যে সদর দক্ষিণ উপজেলা মৎস্য দপ্তরের উদ্যোগে বৃহস্পতিবার র‌্যালি,পোনা অবমুক্তকরণ করা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সদর দক্ষিণ উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল হাই বাবলু। তিনি বলেন,প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার দেশে খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে। এখন দেশে মাছের চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে সরকার নানামুখী পদক্ষেপ গ্রহন করেছে। বিলুপ্ত হওয়ার পথে নানা জাতের দেশীয় প্রজাতির মাছ ফিরিয়ে আনা এবং মাছের উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে হাওরা লসহ বিভিন্ন খাল বিল উন্মুক্ত জলাশয়ে মৎস্য অভয়াশ্রম গড়ে তোলার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। বর্তমান সরকারের সময়োপযোগী কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করার মাছ উৎপাদন বৃদ্ধি পাচ্ছে। বাংলাদেশ এখন বিশে^ ৪র্থ মাছ উৎপাদনকারি দেশ হিসাবে স্থান করে নিয়েছে। দেশীয় মাছের চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে দেশের বিভিন্ন জলাশয়ে মাছের পোনা অবমুক্ত করা হচ্ছে। মাছগুলো বড় না হওয়া পর্যন্ত কেউ যেন মাছ ধরতে না পারে সেদিকে সবাইকে খেয়াল রাখার আহবান জানান।

তিনি আরো বলেন, জনসংখ্যা বৃদ্ধির সাথে সাথে মাছের চাহিদাও বাড়ছে। এ জন্য আমাদের মাছের আবাদ বাড়াতে হবে। কিন্তু এক শ্রেণীর মৎস্যজীবী কারেন্ট ও মশারী জাল দিয়ে বড় মাছের সাথে সাথে ডিমওয়ালা মাছ ও রেণু পোনা ধরে তা বাজারে বিক্রি করছে। ডিমওয়ালা মাছ ও রেণু পোনা যাতে কেউ না মারে সে ব্যাপারে ব্যাপক জনসচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে। যারা সরকারের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে কারেন্ট ও মশারী জাল দিয়ে মাছের বংশ ধ্বংস করবে তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে। শেখ হাসিনা সরকার মৎস্য চাষিদের মান উন্নয়নের লক্ষে বিভিন্ন সাহায্য সহযোগিতা করছেন। সরকার মৎস্য চাষিদের কে বিভিন্ন প্রশিক্ষণের মাধ্যমে এবং ঋন প্রদান করেছে। এক সময় জেলার জলাশয় নানাহ হাওর নদ নদী ও বিল থেকে মাছ ধরে জীবন জীবিকা নির্বাহ করত। এখন তাদের চলছে দূরদিন, ওই সমস্ত হাওর জলাশয় এখন পয়সা ওয়ালারা পুকুর কেটে মাছ চাষ করে ব্যবসা করছে। মৎস্য অধিদপ্তরের উদ্যোগে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে এক বণার্ঢ্য শোভাযাত্রা, আলোচনা সভা এবং পোনা মাছ অবমুক্ত করন করা হয়।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সদর দক্ষিণ উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাছিমা আক্তার পুতুল, সদর দক্ষিণ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মামুন অর রশিদ পিপিএম,সহকারী কমিশনার (ভূমি) অঞ্জন দাস, ,সদর দক্ষিণ উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা শায়লা শারমিন, সদর দক্ষিণ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: মোহাম্মদ আশরাফুর রহমান,সদর দক্ষিণ উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা নাছির উদ্দিন চৌধুরী,উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা তানজুমা পারভীন লুনা,উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ শাহজালাল,উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মোসা: শামীমা শারমীন প্রমুখ। এ সময় উপজেলা সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা মোসা: নিলিমা আক্তার,ফিল্ড এসিস্টেন্ট কাজী সাইফুল ইসলামসহ বিভিন্ন অধিদপ্তরের কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ উপস্থিত ছিলেন।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: