দুটি কিডনি অকেজো হয়ে স্বামী মাহবুবুর রহমান চোখের সামনে ধীরে ধীরে মৃত্যুর দিকে যাচ্ছেন। দিনের পর দিন চোখের সামনে স্বামীকে কষ্ট পেতে দেখে সহ্য করতে পারেননি স্ত্রী জেসমিন সুলতানা। স্বামীকে বাঁচাতে নিজের একটি কিডনি দিয়েছেন তিনি।

এ ঘটনা ছড়িয়ে পড়তেই প্রশংসায় ভাসতে শুরু করেন জেসমিন। তিনি বলেন- পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম মানুষটি এভাবে মরে গেলে আমার তিন সন্তানের কী হবে? আমিই বা কি নিয়ে বাঁচব? এসব কথা ভেবেই স্বামীকে কিডনি দিয়েছি।

মাহবুবুর রহমান-জেসমিন সুলতানা দম্পতি কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার গুণবতী ইউনিয়নের পরিকোট গ্রামের বাসিন্দা। রোববার বিকেলে রাজধানীর শ্যামলী এলাকার একটি হাসপাতালে সফলভাবে মাহবুবের কিডনি প্রতিস্থাপন করা হয়েছে।

মাহবুবুব রহমানের ছোট ভাই প্রবাসী আরিফুর রহমান জানান, তার বড় ভাই দীর্ঘ ১০ বছর কুয়েতে ছিলেন। ৭ বছর আগে তিনি দেশে ফিরে নিজ গ্রামে ছোটখাটো ব্যবসা শুরু করেন। দুই বছর আগে তিনি হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে চিকিৎসক জানান- তার দুটি কিডনিই অকেজো হয়ে গেছে। কিডনি প্রতিস্থাপন করতে না পারলে তাকে বাঁচনো যাবে না। বিষয়টি তার স্ত্রী জেসমিন সুলতানা কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছিলেন না। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে স্বামীকে বাঁচাতে নিজের কিডনি দিয়েছেন তিনি।

মাহবুবের খালাতো ভাই ইলিয়াছ জানান, তার ভাই সুস্থ আছেন। চিকিৎসক জানিয়েছেন অপারেশনের পর মাহবুবের কিডনি কাজ করতে শুরু করেছে। তার স্ত্রীও সুস্থ আছেন।

সূত্রঃ ডেইলি বাংলাদেশ

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: