কুমিল্লা মেঘনা উপজেলায় ফেইসবুকে স্ট্যটাস দেয়াকে কেন্দ্র করে বাড়িঘরে হামলা ভাংচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার সন্ধায় মেঘনা উপজেলার চালিভাংগা ইউনিয়নের রামপ্রসাদেরচর গ্রামে এ হামলা হয়।

গ্রামবাসীর অভিযোগ রামপ্রসাদেরচর গ্রামের শাতাধীক কাঁচা-পাকা ঘর ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে ঘরে থাকা স্বর্নালংকার, নগদ টাকা সহ মূল্যবান মালামাল লুট করে নিয়ে যায় পার্শবর্তী টিটিরচর গ্রামের সংঘবদ্ধ হামলাকারিরা।

এ ঘটনায় নারী, শিশুসহ ১৫ জনের মতো আহত হয়েছে। এমন নারকীয় হামলার বিচার দাবি করেন রামপ্রসাদেরচর গ্রামবাসী। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে ওই গ্রামে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত মাসুদ রানা জানান, টিটিরচর ৮ নং ওয়ার্ডের ছানা মেম্বার ও শাহজাহানের নেতৃত্বে শতাধীক ব্যাক্তি দা, ছেনি, বল্লম ও লাঠি নিয়ে রামপ্রসাদেরচর গ্রামের আব্দুর সোবাহান মিয়া, আনোয়ার মিস্ত্রি, শেখ মোঃ মহসিন, আব্দুল আজিজ, এডভোকেট কামরুজ্জামান ও মোঃ মকবুলের বাড়িতে হামলা চালায়, তিনি জানান, একঘন্টা যাতব গ্রামের প্রতিটি ঘরবাড়ি ও দোকান ভাংচুর করে, ঘরে থাকা লোকজন বাঁধা দিলে তাদের মারধর করে হামলাকারিরা। এতে নারী শিশুও আহত হয়। এ ঘটনার সত্যতা শিকার করে মেঘনা উপজেলার চালিভাংগা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান লতিফ সরকার জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান।

হামলায় ক্ষতিগ্রস্তরা জানান, টিটিরচরের এসএসসি পরিক্ষার্থীকে নিযে ফেইসবুকে স্ট্যটাস দেয়াকে কেন্দ্র করে রামপ্রসাদেরচর গ্রামে হামলা চালায় টিটিরচর গ্রামের লোকজন। ঘটনার কিছুই জানেন না বলে জানান ক্ষতিগ্রস্ত গ্রামবাসী।

জানাগেছে, মেঘনা আনছার আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরিক্ষা দেয়া এক ছাত্রের সাথে ছাত্রীকে জড়িয়ে ফেইসবুকে বাজে স্ট্যটাস দেওয়া হয়। ঘটনাটি গ্রামে জানাজানি হলে টিটিরচরের ওই ছাত্রের বাড়িতে অভিযোগ করে ছাত্রীর অভিভাবক। রামপ্রসাদেরচর গ্রামের আনছার আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের আরেক ছাত্র বিষয়টি মেয়ের বা-মাকে জানিয়েছে এমন অভিযোগে হামলা চালানো হয় বলে জানা গেছে। হামলাকারিদের আটক করতে টিটিরচর গ্রামে অভিযান চালানো হয়েছে দেশ রূপান্তরকে জানান মেঘনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল মজিদ। শুক্রবার সন্ধ্যা পর্যন্ত কেউ অভিযোগ দেয়নি বলে জানান তিনি।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: