কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার ভারেল্লা গ্রামে ফেসবুকে ষ্ট্যাটাস দেওয়ার ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগের ঘটনায় প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসী হামলায় আব্দুল্লাহ আল-মামুন নামের এক ব্যবসায়ীর বাড়ি,স্থানীয় যুবলীগের অফিস ভাঙ্গচুরের ঘটনা ঘটেছে। এসময় নগদ অর্থ,স্বর্নালংকার লুটসহ কমপক্ষে ৮/১০ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়।

ক্ষতিগ্রস্থ বাড়ির মালিক আব্দুল্লাহ আলমামুন জানান, বিগত প্রায় ১ বছর আগে ভারেল্লা এলাকার আরিফ নামের এক যুবক তার বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি ষ্ট্যাটাস দিলে তিনি আইসিটি আইনে বিষয়টি থানায় লিখিত আকারে অভিযোগ করেন। এসময় পুলিশ আরিফকে ডেকে পাঠালে সে থানায় লিখিত মুচলেকা দিয়ে আসে। গত বুধবার ৩ মার্চ রাত আনুমানিক ১২ টায় তার পৈত্রিক বাড়ি বুড়িচং উপজেলার ভারেল্লা ইউনিয়নের ভারেল্লা বাজার সংলগ্ন গ্রামের বাড়িতে আরিফের নেতৃত্বে ২০/২৫ জনের একটি দল সন্ত্রাসী হামলা চালায়।

এসময় বাড়ির সামনে থাকা স্থানীয় যুবলীগের অফিসসহ ঘরের দরজা ভেঙ্গে জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি অবমাননাসহ দরজা, জানালা, আসবাবপত্র ও পাশে থাকা তার মালিকানাধীন একটি বেকারীতেও ভাঙ্গচুর করে। বাড়ি থেকে এসময় লুট করা হয় নগদ ২ লাখ টাকাসহ ৫ ভরি স্বর্নালংকার। এতে তার পক্ষীয় ময়নাল, শরীফ, ফুল মিয়া আহত হয়। এব্যাপারে আব্দুল্লাহ আল-মামুন মামলা দায়েরের প্রস্তুতির কথা জানান। এদিকে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শাহ কামাল জানান, আমি স্থানীয় খালপাড়ে একটি ক্রিকেট খেলায় গিয়ে ফেরার পথে সন্ত্রাসী হামলার আশঙ্কায় কিছু লোকজন আমাকে এগিয়ে দিতে আসলে মামুনের লোকজন হামলা করে। পরে আমার লোকজন আমাকে নিরাপদে সরিয়ে নেয়।

বিষয়টি জানতে চাইলে বুড়িচং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোজাম্মেল হক জানান,চেয়ারম্যান শাহকামাল ও আ’লীগ নেতা মামুনের পক্ষের লোকজনদের মাঝে সংঘর্ষ হয়। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে ৯ রাউন্ড ফাঁকাগুলি ছোড়ে। বর্তমানে এলাকার অবস্থা থমথমে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: