কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার কালিকৃষ্ণনগর আদর্শ গ্রামে চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে প্রতিপক্ষের উপর হামলা ও বাড়ী-ঘর ভাংচুরে ঘটনা ঘটেছে। এতে নারী-শিশুসহ আন্তত ৬ জন আহত হয়েছে। এ ঘটনায় ১২ জনকে আসামী করে বুড়িচং থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মামলার বিবরণে জানা যায়, জেলার বুড়িচং উপজেলার বাকশীমূল ইউনিয়নের কালিকৃষ্ণনগর আদর্শ গ্রামের মৃত বসু মিয়ার ছেলে মোঃ কবির মিয়া’র পরিবারের চলাচলের রাস্তাটি বন্ধ করে দেয় একই এলাকার মোঃ হাশেমের পুত্র রাজু মিয়া। রাস্তা বন্ধের বিষয়টি কবির মিয়া এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিদের অবহিত করে। এতে প্রতিপক্ষ লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে বৃহস্পতিবার রাতে দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে দা, ছেনী ও লাঠি দিয়ে কবির মিয়ার বাড়ীতে হামলা চালায়।

হামলাকারীরা এসময় কবির মিয়ার ঘরে ভাংচুর চালাতে থাকে। কবির মিয়া এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা তাঁকে বেদম পিটাতে থাকে। কবির মিয়ার আত্মচিৎকারে পরিবারের লোকজন এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা এসময় নারী শিশুসহ অন্তত ৬ জনকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করে। আহতদের আত্মচিৎকারে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার লুট করে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে বুড়িচং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। হাসপাতালে আহতদের অবস্থা আরো অবনতি হলে কর্তব্যরত ডাক্তার আহতদের উন্নত চিকিৎসার জন্য কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়।

এ ঘটনায় আহত কবির হোসেনের স্ত্রী মমতাজ বেগম বাদী হয়ে বুড়িচং থানায় ১২ জন নামীয় ও অজ্ঞাত আরো ৩/৪ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করে। আহতরা বর্তমানে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ ও বুড়িচং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধিন আছে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: