কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার মাধবপুর দক্ষিণপাড়া গ্রামে স্ত্রীর সাথে অভিমান করে বসত ঘরের বাঁশের তিরের সাথে গামছা দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে অত্মহত্যা করেছে জাহাঙ্গীর আলম নামের এক যুবক। পুলিশ নিহতের লাশ ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ (কুমেক) হাসপাতালে প্রেরণ করেছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানাগেছে, ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার মাধবপুর দক্ষিণপাড়া গ্রামের চেয়ারম্যান বাড়ীর পাশের বাড়ির জানুমিয়ার ছেলে জাহাঙ্গীর আলম (২৪) এর সাথে মুরাদনগর উপজেলার বাঙ্গরা বাজার থানাধীন আন্দিকোড এলাকার লিজা আক্তারের ৭মাস পূর্বে বিবাহ হয়। পরে লিজা আক্তার জাহাঙ্গীরের সাথে ৪ মাস সংসার করার পর বাবার বাড়ী বেড়াতে গিয়ে জাহাঙ্গীরের সংসারে ফেরত আসতে অনিহা প্রকাশ করে। এদিকে জাহাঙ্গীর ও তার পরিবার গত তিন মাসে বিভিন্ন সময়ে লিজাকে আনতে বিভিন্ন চেষ্টা করে। এতে করেও লিজা জাহাঙ্গীরের সংসারে ফিরে না আসায় স্ত্রী লিজা ও নিজের উপর অভিমান করে জাহাঙ্গীর গত ১১ জুলাই (শনিবার) রাতে বসত ঘরের বাঁশের তিরের সাথে গামছা দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে। পরে খবর পেয়ে ব্রাহ্মণপাড়া থানার এস আই মোঃ রাজু আহম্মেদ সঙ্গীয় ফোর্স সহ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে জাহাঙ্গীরের মরদেহ ঝুলন্ত অবস্থায় ফাঁস থেকে নামিয়ে শোরতহাল প্রতিবেদন তৈরী করে এবং ময়না তদন্তের জন্য লাশ (কুমেক) হাসপাতালে প্রেরণ করেছে।

তদন্তকারী কর্মকর্তা ব্রাহ্মণপাড়া থানার এসআই রাজু আহম্মেদ জানান, আমরা খবর পেয়ে ১২ জুলাই দুপুরে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে জাহঙ্গীরের লাশ তার বসত ঘর থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় ফাঁস থেকে নামিয়ে শোরতহাল প্রতিবেদন তৈরী করে এবং ময়না তদন্তের জন্য লাশ (কুমেক) হাসপাতালে প্রেরণ করেছি। এব্যাপারে জাহাঙ্গীরের বাবা জানু মিয়া বাদী হয়ে ব্রাহ্মণপাড়া থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করেছে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: