চলমান করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতেও থেমে নেই চোর ও প্রতারক চক্র। কুমিল্লার মনোহরগঞ্জে প্রায় অর্ধশতাধিক মসজিদের তালা ভেঙে শতাধিক ব্যাটারি, মাইকের মেশিনসহ মূল্যবান জিনিসপত্র চুরির খবর পাওয়া গেছে। এ ধরনের চুরির ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন মুসল্লিরা।

সর্বশেষ গত বৃহস্পতিবার (১৮ জুন) বিকেলে উপজেলার লৎসর মিয়া বাড়ি শাহী জামে মসজিদেও একই ঘটনা ঘটে।

মসজিদের মুয়াজ্জিন মাওলানা আব্দুর রহিম জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মাগরিবের আজান দিতে এসে মসজিদের মুল ফটকের তালা ভাঙ্গা দেখতে পান তিনি। পরে ভেতরে প্রবেশ করে দেখেন ১২ ভোল্টের প্রায় ২০ হাজার টাকা মূল্যের ৩টি ব্যাটারির একটিও নেই। এতে মসজিদের প্রায় ৬০ হাজার টাকা ক্ষতি সাধিত হওয়ার কথা জানান তিনি।

ব্যাটারি চুরি হয়ে যাওয়ায় সৌর বিদ্যুৎচালিত দু’টি প্যানেল অকার্যকর হয়ে পড়েছে। বিদ্যুৎ না থাকলে মাইকে আজান দেওয়া নিয়ে বিড়ম্বনায় পড়ার কথাও জানান মুয়াজ্জিন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের সময় গত ৩ মাসে প্রায় অর্ধশতাধিক মসজিদের ব্যাটারি ও মাইকের মেশিন চুরির ঘটনা ঘটেছে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায়। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে মুসুল্লি সেজে একটি প্রতারক চক্র এমন কাজ করছেন বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

উপজেলার দিশাবন্দ গ্রামের আল হারামাইন জামে মসজিদের সভাপতি মাওলানা তাজুল ইসলাম জানান, সম্প্রতি তাদের মসজিদেও এমন ঘটনা ঘটেছে।

উপজেলার লৎসর ব্যাপারী বাড়ি জামে মসজিদের সেক্রেটারি হাফেজ আহমদ জানান, একটি চক্র মুসল্লি সেজে নামাজের শেষের দিকে মসজিদে নামাজ আদায় করতে যায়। এক পর্যায়ে সব মুসল্লি চলে গেলে সুযোগ বুঝে সিএনজিযোগে মসজিদের এসব সামগ্রী নিয়ে নিয়ে দ্রুত কেটে পড়ে।

উপজেলার নাথেরপেটুয়া ইউপি চেয়ারম্যান রুহুল আমিন জানান, এই রকম ঘটনা এই এলাকায়ও আছে। শুধু মসজিদ নয় সম্প্রতি ভোগই বাজারস্থ নবনির্মিত পাবলিক টয়লেটে স্থাপিত একটি মোটর পাম্প টয়লেট উদ্বোধনের আগেই চুরি হয়ে যাওয়ার কথা জানান তিনি।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহেল রানার জানান, করোনা পরিস্থিতির মত এমন একটি সময়ে মসজিদের ব্যাটারি চুরি বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক। বিষয়টি উদঘাটন সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের কথাও জানান তিনি।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: