করােনা সংক্রমণের কারণে শিক্ষামন্ত্রণালয় কর্তৃক আগামী ২৯ মে পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত প্রত্যাখান করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

সোমবার (২৪ মে) সকাল ১০ টা থেকে পূর্বনির্ধারিত ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটক সংলগ্ন রাস্তায় মানববন্ধন কর্মসূচি শুরু হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের ১২তম ব্যাচের শিক্ষার্থী আবির রায়হানের সঞ্চালনায় বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করে।

এসময় শিক্ষার্থীরা “অনলাইন শিক্ষা মানি না,অনিশ্চিত ভবিষ্যৎ মানি না”,”দাবী মোদের একটাই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা চাই।”শিক্ষার অধিকার ফেরত চাই,শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা চাই” বিভিন্ন স্লোগান সম্বলিত প্ল্যাকার্ড নিয়ে মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করেন।

শিক্ষার্থীরা সরকারের কাছে দাবি উত্থাপন করে বলেন, অবিলম্বে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হোক। আমরা দীর্ঘদিন অপেক্ষা করেছি। কিন্তু বাস্তবিক অর্থে আশ্বাসেই সব সীমাবদ্ধ। আমাদের বয়স বেড়ে যাচ্ছে। যেখানে গণপরিবহন চলে, গার্মেন্টস চলে, মার্কেট খোলা, সবকিছুই চলচে আপন গতিতে। কিন্তু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে করোনার কথা বলে বন্ধ রাখা হয়েছে। আমরা অতি দ্রুত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার দাবী জানাচ্ছি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ১০ম ব্যাচের শিক্ষার্থী “কুতুবউদ্দিন বলেন, আমরা সাধারণ শিক্ষার্থী পরিবারের স্বপ্ন আমাদের কাঁধে। কিন্তু দীর্ঘ প্রায় দুই বছর হতে চলল আমাদের একাডেমিক পর্যায়ে কোন অগ্রগতি নেই। আমরা হতাশাগ্রস্ত। শিক্ষার্থীদের দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে। আমরা সরকারের কাছে আহ্বান জানাই। এই মুহূর্তে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিন।”

এসময় আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের মাঝে এসে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরী বলেন, যদি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার অনুমতি দেয়া হয়, কথা দিচ্ছি কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সবার আগে পরীক্ষা নিবে। আমি শিক্ষার্থীদের দাবির সাথে সম্পূর্ণ একমত। আমি ইউজিসি ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে তোমাদের মেসেজগুলো পাঠাবো।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: