রাজিব হয়ত এই সময়ে ছুটে চলত শহরের এই প্রান্ত হতে ঐ প্রান্তে কিন্তু রাজিব এখন জীবন যুদ্ধে হার না মানা এক সৈনিক। দরিদ্রতার সাথে যুদ্ধ করে ২০১৪ সালে কুমিল্লা বুড়িচং উপজেলার খাড়াতাইয়া উচ্চ বিদ্যালয় হতে এসএসসি এবং ২০১৬ সালে সোনার বাংলা কলেজ হতে এইচএসসি পাশ করে।

বিজ্ঞাপন

পাশ করার পর পরিবারের সোনালী দিন ফিরিয়ে আনার আশায় চাকরি নেয় পল্লী বিদ্যুৎ অফিসে। চাকরিতে যোগদান করার আগেই ঘটে ভাগ্যের নির্মম পরিহাস।

২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে বৈদ্যুতিক কাজ করতে গিয়ে রাজিব হারায় তার মূল্যবান সম্পদ, কেটে ফেলতে হয় হাত ও পা। অভাবের সংসারে নেমে আসে আরও অভাব। জীবনের তাগিদে বেছে নেয় ভিক্ষাবৃত্তি। করোনার এই সময়ে কেউ যেন ভিক্ষা টুকুও দিতে চায় না। অভাবের সাথেই যেন কাটছে তার এক একটি দিন। কৃত্রিম হাত-পা সংযোজন করে কিছু করে চলার ইচ্ছে তার। শেষের কথাগুলো খুব কষ্টের,চোখে পানিও আটকে থাকতে চায় না। ঋণের বোঝা, শেষ সম্বল ভিটেমাটি টুকু হারাতে বসা, আত্মীয়স্বজনদের অবহেলা ও অসহযোগিতা সব মিলে এক খারাপ দিন পার করছে রাজিব।

অনাহারে, অযত্নে দিনযাপন করছে, ভিক্ষা করে ঋণ শোধ করতে হচ্ছে। এভাবে রাস্তায় থেকে মরতে চায় না রাজীব, আমাদের মাঝে বেঁচে থাকতে চায়। একটু সহযোগিতাই পারে রাজিবকে ভাল অবস্থানে আনতে। রাজিবের জন্য কিছু করতে আমাদের ছোট ছোট সাহায্যগুলো হয়ত রাজিবের বড় পাওয়া। আসুন আমরা আমাদের নিজ নিজ জায়গা হতে এগিয়ে আসি। আমরা সবাই চাই রাজিব আবার আমাদের মত সুস্থ ও সুন্দর জীবন যাপন করুক।

রাজিবের জন্য সাহায্য পাঠাবেনঃ
01813500132 (রাজিব, বিকাশ পার্সোনাল)
01704838696 (রাজিব, বিকাশ পার্সোনাল)

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: