ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লার হোমনায় সাড়ে দশ লাখ টাকার (১৩২ কেজি) গাজাসহ ৬ মাদক কারবারী ও দুটি পিকআপ ভ্যান আটক করেছে র‌্যাব-৭। গতকাল রবিবার সকালে উপজেলার চৌরাস্তা মোড়ের নয়ন ষ্টোরের সামনে থেকে তাদেরকে আটক করা হয়। পরে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে র‌্যাব-৭ এর ফেনী ক্যাম্প’র নায়েব সুবেদার মো. হাবিবুর রহমান (বিজিবি) সন্ধ্যায় হোমনায় বাদী হয়ে মামলা করে থানা পুলিশের নিকট আসামীদের হস্তান্তর করেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ফেনী ক্যাম্পের র‌্যাব-৭ বিশেষ অভিযান পরিচালনা করাকালে র‌্যাব-৭ এর স্কোয়াডন লিডার সাফায়েত জামিল ফাহিম পিপিএম, মেজর মাসুদ রানা ও এএসপি মো. নুরুজ্জামান এর নেতৃত্বে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে দুটি পিকআপ ভ্যানের পিছনে অভিযান চালানো হয়। শনিবার রাতে চট্রগ্রাম থেকে পিকআপ ভ্যান দুটিতে লাকড়ির সাথে গাঁজা নিয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয় এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গাড়ি দুটিকে অনুসরণ করে কুমিল্লার হোমনা উপজেলা চৌরাস্তা মোড়ে নয়ন ষ্টোরের সামনে গতি রোধ করা হয়। পরে উপস্থিত লোকজনের সামনে গাড়িতে তল্লাশি করে ৫বস্তা (১৩২কেজি) গাঁজা উদ্ধার করা হয়। ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ৬ জন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়।

আটককৃতরা হল-কুমিল্লার বি-পাড়ার নোয়াপাড়া গ্রামের মৃত ফরিদ মিয়ার ছেলে কাউসার (২১) ও একই গ্রামের মো. আলমগীর আলমের ছেলে মো. কবির (৩৬), মুন্সিগঞ্জ জেলার সিরাজদী খান উপজেলার গোলাপি গ্রামের মৃত আহম্মদ শেখের ছেলে আক্তার শেখ, ঢাকা সূত্রাপুর থানার নারিন্দা এলাকার মৃত চাঁন মিয়ার ছেলে মো. ইউসুফ (৩৬), দক্ষিন যাত্রাবাড়ি ঢাকা ১৯৪/২ এলাকার নাসির খানের ছেলে মো. সালেহ (৪৫), পটুয়াখালি জেলার বাউফল উপজেলার মৃত মোন্তাজ মিয়ার ছেলে মো. জাহাঙ্গীর আলম।

আসামী ও জব্দকৃত মালামালসহ সন্ধ্যায় সিজার লিষ্ট করে হোমনা থানায় সোপর্দ করা হয়। আগামীকাল আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হবে বলে জানান হোমনা থানা অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ মোহাম্মদ ফজলে রাব্বি। তিনি বলেন, নায়েব সুবেদার হাবিবুর রহমান বাদী হয়ে আসামীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন। থানায় প্রক্রিয়া শেষে সকলের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: