ডেস্ক রিপোর্টঃ অপহরণের পর কৌশলে পালিয়ে বাঁচলো মাদ্রাসাছাত্রী তাসলিমা আক্তার (১৫)। সে জানায়, কুমিল্লার লালমাইয়ে শনিবার (১৩ জুলাই) ভোরে মক্তবে যাওয়ার পথে তাকে অপহরণে করে মাইক্রোবাস তোলা হয়। পরে সে কৌশলে পালিয়ে আসে।

লালমাই উপজেলার কাঁকসার গ্রামের কালাম মিয়ার মেয়ে তাসলিমা। নানার বাড়ি একই উপজেলার পেরুল গ্রামে থেকে পড়ালেখা করে সে। ফয়েজগঞ্জ ইসলামিয়া সিনিয়র মাদ্রাসারে সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী তাসলিমা।

মামা মফিজুর রহমান জানান, তাসলিমা প্রতিদিনের মতো ভোর ৬টার দিকে মক্তবে যাওয়ার জন্য বাড়ি থেকে বের হয়। বাড়ির বাইরে বোরকা পরা এক নারী তার কাছে সাহায্য চায়। তাসলিমা বলে, এটা আমার নানার বাড়ি আপনি ভেতরে যান। এই বলে রাস্তা পার হওয়ার সময় ওই নারী পেছন থেকে তাকে অচেতন করে কালো কাচের মাক্রোবাসে উঠিয়ে নেয়। মাইক্রোবাসটি বিজয়পুর পৌঁছুলে তার জ্ঞান ফেরে। সে দেখে গাড়িতে আরও দু’টি বাচ্চা রয়েছে। বাচ্চা দু’টি কান্না করায় কিছু সময় পর গাড়ি থামিয়ে ওই নারী মোবাইলে কথা বলতে নামেন। ওই সময় তাসলিমা কৌশলে গাড়ি থেকে নেমে পালিয়ে আসে। বিষয়টি পুলিশকে জানিয়েছেন তারা।

লালমাই থানার ওসি বদিউল আলম বলেন, ‘অপহরণের চেষ্টার বিষয়টি আমরা শুনেছি। তবে এ ঘটনার কোনও সাক্ষী পাওয়া যায়নি। বিষয়টি আমরা খতিয়ে দেখছি।’

সূত্রঃ বাংলা ট্রিবিউন