মো.জাকির হোসেনঃ জাতীয় প্রধান ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার নিমসার এলাকায় কাভার্ডভ্যান চালক আলাউদ্দিন (২৯) হত্যাকান্ডের ৪৮ ঘন্টা সময়ের মধ্যে পুলিশ শরিয়তপুর জেলার ডামুড্যা উপজেলা থেকে ঘাতক রাশেদ (২৪) কে গ্রেফতার করেছে। এসময় সে চালককে হত্যার কথা স্বীকার করে।

জানা যায়, গত ২৬ ডিসেম্বর বুধবার বিকেলে ঢাকার মাওনা এলাকায় অবস্থিত এক্স সিরামিক কারখানা থেকে টাইলস্ নিয়ে একটি কাভার্ডভ্যান (ঢাকা-মেট্রো-ট-১১-১৬৭৭) চাঁদপুরের হাজিগঞ্জের উদ্দেশ্যে যাত্রা করে। পরবর্তিতে সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টায় কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার মোকাম ইউনিয়নের নিমসার বাজার এলাকায় মহাসড়কের ফোরলেনের ঢাকামুখী অংশে সড়কের বামপার্শ্বে দাড়ানো কাভার্ডভ্যান থেকে পথচারীরা চালকের আসনের পিছনে কম্বল দিয়ে মোড়ানো অবস্থায় চালক আলাউদ্দিনের মৃতদেহ দেখতে পায়। পরবর্তীতে বিষয়টি বাজারের ব্যবসায়ীরা প্রথমে দেবপুর ফাঁড়ির আইসি ইন্সপেক্টর মোঃ সাজ্জাদ হোসেনকে অবহিত করেন। একই সময় ব্যবসায়ীরা বুড়িচং থানায়ও বিষয়টি অবহিত করে।

খবর পেয়ে প্রথমে দেবপুর ফাঁড়ি’র এসআই নন্দন সরকার ঘটনাস্থলে যায়। পরে একে একে কুমিল্লা সদর সার্কেল অতিরিক্ত পুলিশ সুপার
তানভীর সালেহীন ইমন, বুড়িচং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আকুল চন্দ্র বিশ্বাস, ময়নামতি হাইওয়ে ক্রসিং থানা পুলিশ, সিআইডি ,পিবিআই সদস্য সেখানে উপস্থিত হন।

এসময় পুলিশ সুরতহাল রিপোর্ট করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। এদিকে মহাসড়কের ব্যস্ততম এলাকায় কাভার্ডভ্যানে চালকের লাশ পেয়ে নড়েচড়ে বসে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারীবাহিনীর একাধিক ইউনিট। পরবর্তীতে পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম বিপিএম (বার) পিপিএম এর নির্দেশে অতিঃ পুলিশ সুপার (কুমিল্লা সদর সার্কেল ) তানভীর সালেহীন ইমন পিপিএম এর নেতৃত্বে বুড়িচং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আকুল চন্দ্র বিশ্বাস ও ইন্সপেক্টর তদন্ত মোঃ সাফায়েত হোসেন এর সমন্বয়ে দুটি টিম গঠন করে।

এরই এক পর্যায়ে শনিবার রাত আনুমানিক ১২.২০ টায় বুড়িচং থানার দেবপুর ফাঁড়ির এসআই নন্দন সরকারের নেতৃত্বে একটি দল শরিয়তপুর জেলার ডামুড্যা উপজেলার দশমনতারা গ্রাম থেকে আলাউদ্দিন হত্যায় জড়িত ওই গ্রামের জযনাল হাওলাদের পুত্র রাশেদুল ইসলাম ওরফে রাশেদকে আটক করে। পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে রাশেদ হত্যাকান্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে। পুলিশ হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত একটি লোকার রড উদ্ধার করেছে।

রোববার বিকেলে কুমিল্লা সদর সার্কেল কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে সদর সার্কেল তানভীর সালেহ ইমন আসামী আটকসহ হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত লোহার রড উদ্ধারের বিষয়টি অবহিত করেন। এসময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি আরো বলেন,ঘাতককে আরো জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে পাঠানো হবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: