মারুফ আহমেদঃ কুমিল্লা সদর উপজেলার কৃষ্ণনগর (ঘোরামারা) গ্রামে স্বামী,সতীন,সন্তান ও তার স্ত্রীর নির্যাতন সইতে না পেরে রোববার রাতে মনোয়ারা বেগম (৫৫) নামের এক গৃহবধূ বিষপানে আত্নহত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এঘটনায় পুলিশ স্বামী,সতীনসহ ৪ জনকে আটক করেছে।

স্থানীয় ও পুলিশ সুত্রে জানা যায়,জেলার সদর উপজেলার উত্তর দুর্গাপুর ইউনিয়নের কৃষ্ণনগর (ঘোরামারা) গ্রামের জহিরুল ইসলামের দু’সংসার। প্রথম স্ত্রী মনোয়ারার দু’ছেলে এবং দ্বিতীয় স্ত্রী জামেলা খাতুন নিঃসন্তান। যৌথ পরিবার হওয়ায় প্রায়ই পরিবারের সদস্যদের মাঝে বিরোধ লেগে থাকতো। গত ১২ আগষ্ট রোববার মনোয়ারার সাথে স্বামী,সতীন,নিজ সন্তান ও তার স্ত্রীর বিরোধ হয়। এঘটনায় তাকে মারধোরসহ বিভিন্নভাবে নির্যাতন করা হয়। রাতে স্বামী,সতীন,সন্তানসহ তার স্ত্রীর নির্যাতন সইতে না পেরে বাড়ির সকলের অগোচরে মনোয়ারা বিষপান করেন। গতকাল সোমবার সকালে পরিবারের সদস্যরা তাকে ডাকাডাকি করতে গেলে কোন সাড়া না পেয়ে জানালা ভেঙ্গে দেখে মাটিতে উপুর হয়ে পড়ে আছেন। এঅবস্থায় ঘটনাটি ময়নামতি নাজিরাবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে অবহিত করলে এসআই দয়াল হরি ভৌমিক ঘটনাস্থলে এসে দরজা কেটে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেন। পরে পুলিশ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে নিহতের স্বামী জহিরুল ইসলাম,সতীন জামেলা খাতুন,পুত্র মোজাম্মেল ও তার স্ত্রী লাকি আক্তারকে আটকে ফাঁড়িতে নিয়ে যায়।

কোতয়ালী থানার ওসি (তদন্ত) সালাহউদ্দিন জানান, লাশ ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: