কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলায় ছাত্রীকে (১০) নিপীড়নের অভিযোগে এক মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষককে আটক করেছে পুলিশ। অভিযুক্তের নাম মোহাম্মদ হাসান।

সোমবার রাতে প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ হাসানকে উম্মেহানি মহিলা মাদ্রাসার অফিস রুম থেকে আটক করা হয়।

মোহাম্মদ হাসান উপজেলা সদরের নিমাইকান্দি গ্রামের মৃত আবদুছ ছাত্তারের ছেলে। তিনি উপজেলা সদরের উম্মেহানি মহিলা মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ২৩ সেপ্টেম্বর প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ হাসান মাদ্রাসা থেকে তার ১০০ টাকা চুরি হয়েছে এ অভিযোগ এনে হেফজ বিভাগের ১০ বছরের এক ছাত্রীকে তার অফিস রুমে ডেকে নেয়।

পরে ওই ছাত্রীকে নিপীড়ন করেন। এ ঘটনার পর এক সপ্তাহ মাদ্রাসায় না গেলে মেয়েটির মা তাকে মাদ্রাসায় জোর করে পাঠানোর চেষ্টা করেন। পরে ওই ছাত্রী বাধ্য হয়ে তার মায়ের কাছে হয়রানির ঘটনা খুলে বলে।

সোমবার রাতে মুরাদনগর থানায় এসে ওই ছাত্রীর মা বাদী হয়ে একটি অভিযোগ করেন। অভিযোগের ভিত্তিতে সোমবার রাতেই হাসানকে তার মাদ্রাসার অফিস রুম থেকে আটক করা হয়।

স্থানীয়দের অভিযোগ, এলাকার অসহায় লোকদের জমি দখল করে মাদ্রাসা নির্মাণ করেছেন ওই প্রধান শিক্ষক। এমন একাধিক অভিযোগও রয়েছে মোহাম্মদ হাসানের বিরুদ্ধে।

মুরাদনগর থানার ওসি একেএম মনজুর আলম বলেন, ছাত্রীর মায়ের অভিযোগের ভিত্তিতে হাসানকে আটক করা হয়েছে। আজ দুপুরের মধ্যেই তাকে কারাগারে পাঠানো হবে।