কুমিল্লা জেলার উত্তরে অত্যন্ত পরিচিত দু’টি উপজেলা বুড়িচং ও ব্রাহ্মণপাড়া। ২১ কিলোমিটার সড়ক পথের দু’ উপজেলার জনগন বিভিন্ন কাজে জেলা শহরে প্রতিনিয়ত যাতায়াত করে। কুমিল্লা শাসনগাছা থেকে এ সড়কে প্রতিদিন মিনিবাস, সিএনজি অটোরিক্সা, ইজিবাইক, মাইক্রো, পিক-আপ, মটরসাইকেল, ট্রাকট্রার, ব্যাক্তিগত ও সরকারী বিভিন্ন দপ্তরের যানবাহনসহ হাজার হাজার যানবাহন চলাচল করে।

বিজ্ঞাপন

শাসনগাছা থেকে বুড়িচং হয়ে ব্রাহ্মণপাড়া পৌছতে যেখানে ৪০ মিনিট সময় লাগার কথা সেখানে সময় লাগছে ৩ থেকে সারে ৩ ঘন্টা। এর মূল কারন হচ্ছে, বুড়িচং ও ব্রাহ্মণপাড়া সদর বাজার এলাকা। সড়কের দুইপাশে রাস্তা দখল করে বিভিন্ন ভ্রাম্যমান দোকান, ইজিবাইক ও সিএিনজি অটোরিক্স্রাসহ বিভিন্ন যানবাহন যত্রতত্র দাড়িয়ে যাত্রি উঠানামা করা। ইদানিং সব চাইতে বড় সমস্য হচ্ছে আন্তঃজেলা ট্রাক চলাচল। মাল বোঝাই করা বড় দুটো ট্রাক মুখোমুখো হলেই প্রচন্ড যানজটের কবলে পড়তে হয় যাত্রীদের। তরপর আবার চেকার বাহিনী রাস্তায় যানবাহন থামিয়ে জিপির নামে তুলছে টাকা। সব মিলিয়ে প্রচন্ড ভুগান্তিতে সরকারী ও বেসরকারী কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে বিভিন্ন কাজে আগত বিভিন্ন শ্রেনীপেশার লোকজন।

এ সড়কে প্রতিনিয়ত যাতায়াতকারী ব্যাবসায়ী আবুল কালাম আজাদ এ প্রতিনিধিকে বলেন, আমরা এ ভোগান্তি থেকে মুক্তি চাই। দিনের বেলায় আন্তঃজেলা ট্রাকগুলো এ সড়কে প্রবেশ না করতে দিলে যানজট অনেকটা কমে আসবে বলে আমি মনে করি। সে কারনে কুমিল্লার শাসনগাছা এবং ব্রাহ্মণপাড়ার মিরপুরে চেকপোষ্ট বসানোর দাবি জানাচ্ছি। এছাড়া কুমিল্লা সদর, বুড়িচং ও ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে কঠোরভাবে আইনগত ব্যাবস্থা নেবার আহবান জানাচ্ছি।

জানতে চাওয়া হলে বুড়িচং উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইমরুল হাসান এ প্রতিনিধিকে বলেন, ইতিমধ্যে আইনশৃংখলা মিটিংয়ে বাজার কমিটির নের্তৃবৃন্দদের নিয়ে যানজট নিরশনে কাজ করে যাচ্ছে উপজেলা প্রশাসন। মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে চালকদের জরিমানা করা হচ্ছে। প্রশাসন যতক্ষণ মাঠে থাকে ততক্ষণ যানজট থাকে না। মাঠ থেকে চলে এলে আবারও যানজট শুরু হয়ে যায়। এব্যাপারে চালক ও ব্যাবসায়ীদের বেশী সচেতন হতে হবে। শুধু প্রশাসনের দিকে তাকিয়ে থাকলে হবে না। তবে যানজট নিরশনে মোবাইল কোট অব্যাহত থাকবে।

এব্যাপারে ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফৌজিয়া ছিদ্দিকা বলেন, ইতিমধ্যে বাজার কমিটির নের্তৃবৃন্দের মাধ্যমে ব্যাবসায়ীদের জানিয়ে দেয়া হয়েছে কেউ যেন দিনের বেলার আন্তঃজেলা ট্রাক দিয়ে মালামাল ব্যাবসা প্রতিষ্ঠানে আনে। রাত ৮টার পর মালামাল লোডিং আনলোডিং করতে পারবে। নির্দেশনা অমান্যকারীদের মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে জরিমানা অব্যাহত রয়েছে। তিনি বলেন, যানজট নিরশনে করনীয় নিয়ে কাজ করছে উপজেলা প্রশাসন।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: