মাহফুজ নান্টু।। কুমিল্লা মর্ডাণ হাইস্কুলের শিক্ষক মনিরুল ইসলাম হায়দারে উপর হামলা ঘটনা ঘটে।একদল দূর্বৃত্ত শিক্ষক মনিরুল ইসলাম হায়দারকে কুপিয়ে জখম করে ফেলে রেখে যায়।পরে ম্থানীয়রা উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় রানির বাজার বিসিক এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে অজ্ঞাতদের নামে থানায় মামলা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গতকাল শুক্রবার মনিরুল ইসলাম হায়দার জরুরী কাজে রানীর বাজার বিসিক মোড় এলাকায় আসলে কতিপয় দূর্বৃত্ত ধারালো অস্ত্র নিয়ে মনিরুল ইসলামের উপর হামলা চালায়। ধারালো অস্ত্রের আঘাতে মনিরুল ইসলামের হাত পা ও পিঠের বিভিন্ন অংশ কেটে যায়। এ সময় স্থানীয়রা আহত শিক্ষক মনিরুল ইসলামকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল হাসপাতালে নিয়ে যায়।

কুমিল্লা মর্ডাণ হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক একেএম আক্তার হোসেন বলেন,মনিরুল ইসলাম হায়দার প্রভাতি শাখার ইংরেজী বিষয়ে শিক্ষক। গতকাল মনিরুল ইসলাম হায়দার জরুরী কাজে রানীর বাজার বিসিক এলাকায় আসলে অজ্ঞাতরা ধারালো অস্ত্র নিয়ে মনিরুল ইসলাম হায়দারের উপর আক্রমন করে। শুক্রবার সন্ধ্যার এ ঘটনা শুনে আমরা কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ছুটে যাই। ধারণা করা হচ্ছে আভ্যন্তরীন কোন্দলের জের ধরে এ ঘটনা ঘটেছে। আজ শনিবার শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা দায়ীদের গ্রেফতারের দাবিতে ক্লাশ বর্জন করে বিক্ষোভ প্রদর্শণ করে।

কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো:আনোয়ারুল হক জানান, অজ্ঞাত দূর্বৃত্তদের বিরুদ্ধে কোতয়ালী মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। আজ শনিবার মর্ডাণ হাইস্কলে বিক্ষোভরত শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের আশ্বস্থ করি যে অচিরেই শিক্ষক মনিরুল ইসলাম হায়দারের উপর হামলাকারীদের আটক করে আইনের আওতায় আনবো। আজ আমি ও কোতয়ালী থানার অন্যান্য কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। আশাকরি দূর্বৃত্তরা খুবই শীঘ্রই আটক হবে।