কুমিল্লা শিদলাই গ্রামের এ সংঘর্ষ চলে প্রায় ৯০ বছর ধরে !

ডেস্ক রিপোর্টঃ ব্রাহ্মণপাড়ার শিদলাই গ্রামের এ সংঘর্ষ চলে প্রায় ৯০ বছর ধরে। দীর্ঘ বছরে বংশ পরম্পরায় এ দুটি গ্রুপ সংঘর্ষে জড়িয়েছে ২৪ বার। প্রাণ হারিয়েছেন তিনজন; আহত হয়েছেন শত শত নারী-পুরুষ।

স্থানীয় গ্রামবাসী ও জনপ্রতিনিধির সাথে কথা বলে জানা গেছে এ তথ্য। সর্বশেষ শনিবার ভোরে সংঘটিত সংঘর্ষে নিহত হন দুজন।

৯০ বছর ধরে ‘অহমিকার লড়াই’ শিদলাইয়ে!বিষয়টির সাথে একমত পোষণ করে সিদলাই ইউপি চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন মাহমুদ বলেন, শিদলাই গ্রামের দক্ষিণ পাড়া ৯নং ওয়ার্ডের এ দুটি গ্রুপ ৯০ বছরে ২৪ বার সংঘর্ষে লিপ্ত হয়েছে। দু’টি পক্ষই বিষয়টিকে তাদের ‘অস্তিত্বের লড়াই’ হিসেবে নিয়েছে- যার ফলে এ সংঘর্ষ থামানো যাচ্ছে না কিছুতেই। কিন্তু আমরা এর স্থায়ী সমাধান চাই।

এ বিষয়ে ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর খান চৌধুরী জানান, সাবেক আইনমন্ত্রী আবদুল মতিন খসরু এমপি কয়েক দফা চেষ্টা করেও তাদের একঘেয়েমির কারণে বিষয়টির মীমাংসা করতে পারেননি। এখন তিনি দেশের বাইরে আছেন; ফিরলেই বিষয়টির সুরাহায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

৯০ বছর ধরে ‘অহমিকার লড়াই’ শিদলাইয়ে!ব্রাহ্মণপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ আবু মো. শাহজাহান জানান, সংঘর্ষের পর থেকে গ্রামটিতে পুলিশের অভিযান জোরদার করা হয়েছে। গ্রেফতার করা হয়েছে তিনজনকে। পরবর্তীতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও জানান তিনি।

উল্লেখ্য, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে গত শনিবার সকালে অ্যামরিকা প্রবাসী শামছুল হক গ্রুপের লোকজন প্রতিপক্ষ মফিজ গ্রুপের বাড়ি ঘরে হামলা চালায়। এসময় খবর পেয়ে মফিজ গ্রুপের লোকজনও পাল্টা হামলায় লিপ্ত হয়। এতে দুই গ্রুপের নারী পুরুষসহ ১০ জন আহত হয়েছে। পরে এলাকাবাসী আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সহ বিভিন্ন হাসপালে ভর্তি করে।

এঘটনায় শমছুল হক গ্রুপের মৃত আবদুল ওয়াদুধ মেম্বারের ছেলে খোরশেদ আলম (৫০) ঘটনাস্থলে নিহত হয় এবং একই দলের মৃত ছোবহানের ছেলে শানু মিয়া (৬২) কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপালে চিকিৎসাধিন অবস্থায় ঘটনার দিন সকালেই মারা যায়।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ