ঝুঁকি এড়াতে কুমিল্লা শিল্প ও বাণিজ্য মেলা বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। আজ (১৭ মা’র্চ) কুমিল্লা জে’লা প্রশাসক মোঃ আবুল ফজল মীর এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বিজ্ঞাপন

মাসব্যাপি এই মেলা গত ২০ ফেব্রুয়ারি কুমিল্লা শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত স্টেডিয়ামে শুরু হয়। কুমিল্লা জেলা সিভিল সার্জন ডা. নিয়াতুজ্জামান জানান, করোনা প্রতিরোধে সর্বোচ্চ সতর্কতা ব্যবস্থা সরূপ ইতোমধ্যে সব স্কুল কলেজ ও জন সমাগম হয় এমন প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

সেক্ষেত্রে কুমিল্লার শিল্প ও বাণিজ্য মেলা বন্ধ ঘোষণা করা সময়োপযোগী কাজ হয়েছে। এতে করে করোনা সংক্রমনের ঝুঁকি কমে আসবে।
অপরদিকে করোনা ভাইরাস আ’তঙ্কে সরকারি নির্দে’শনা মোতাবেক কুমিল্লা শিশুপার্ক ও নগরউদ্যান (ধর্মসাগরপাড়) অনিদির্ষ্টকালের জন্য ব’ন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার এক বিজ্ঞপ্তি কুমিল্লা সিটি মেয়র মনিরুল হক সাক্কু বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। মূল ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেয়া হয়েছে। এছাড়া ঈদগাহ মাঠ তালা দিয়ে রাখা হয়েছে।

করোনা ভাইরাস থেকে নিজে এবং নিজের পরিবারকে নি’রাপদ রাখুন, জনসমাগম এড়িয়ে চলুন, বাসায় অবস্থান করুন, পরিস্কার পরিচ্ছন্ন থাকুন।

কুমিল্লা দোকান মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আতিক উল্ল্যাহ খোকন বলেন, আমরা জে’লা প্রশা’সক ও পু’লিশ সুপারকে এই তথ্য জানিয়েছি।

যেখানে সাধারণ মানুষের নি’রাপত্তা বিবেচনা করে মুজিবর্ষ উদযাপনের কর্মসূচী সংক্ষিপ্ত করা হয়েছে- সেখানে শিল্প ও বাণিজ্য মেলা ব’ন্ধ করা সমীচীন হযেছে।

এরই মধ্যে জমে উঠেছিলো এই মেলা। সকাল সন্ধ্যায় কুমিল্লা নগরীর বিভিন্ন এলাকাসহ বিভিন্ন উপজেলা থেকে ভিড় করছিলো সাধারণ ক্রেতারা। তবে অনেকটা বদ্ধ পরিবেশে এমন জন সমাগম করোনা ঝুঁ’কি তৈরী করবে এই বিবেচনায় মেলা ব’ন্ধ করে দেয়ায় খুশি কুমিল্লাবাসী।

দেশে আরও দুইজন করোনাভাইরাসে আ’ক্রান্ত হয়েছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় ৩৬ জনের নমুনা সংগ্রহের মাধ্যমে পরীক্ষা করার পর এ দুজনের শরীরে করোনার উপস্থিতি পাওয়া গেছে। এ নিয়ে দেশে করোনায় মোট আ’ক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০ জনে।

মঙ্গলবার (১৭ মার্চ) রাজধানীর মহাখালীতে স্বাস্থ্য অধিদফতরের রোগতত্ত্ব, রোগ নি’য়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা করোনাভাইরাস-সং’ক্রান্ত নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান।

ডা. ফ্লোরা জানান, নতুন করে যে দুজন আ’ক্রান্ত হয়েছেন, তারা পুরুষ। একজন ইতালি থেকে আসা, আরেকজন যুক্তরাষ্ট্র থেকে এসেছেন। একজন ছিলেন প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে, আরেকজন একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

তিনি একজন আ’ক্রান্তের সংস্পর্শে থেকে সংক্রমিত হয়েছেন। দেশে এখন মোট ১৬ জন আইসোলেশনে আছেন। প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টইনে আছেন ৪৩ জন।